logo

বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ | ৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

‘কৃষকদের কম্পোস্টে সারে আগ্রহী হতে হবে’

ইসমাইল হোসেন বাবু, কুষ্টিয়া | আপডেট: ০২ নভেম্বর ২০১৮

কুষ্টিয়া থেকে যাত্রা শুরু করলো ভার্মি কম্পোস্টের প্রতিষ্ঠান অ্যাগ্রো অ্যালকামি। কেক কেটে অ্যাগ্রো অ্যালকামির উদ্বোধনের পাশাপাশি একইসঙ্গে অনুষ্ঠিত হয়েছে ভার্মি কম্পোস্টের উপর মাঠ দিবস অনুষ্ঠান।

আজ শুক্রবার বিকেল ৩টার সময় মিরপুর উপজেলা কৃষি অফিসের উদ্যোগে এনএটিপি-২ এর আওতায় উপজেলার আমলা ইউনিয়নের কুশাবাড়ীয়া-চরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এ মাঠ দিবস অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এসময় কেক কেটে অ্যাগ্রো অ্যালকামির উদ্বোধন করেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. আসলাম হোসেন।

অনুষ্ঠানে মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এসএম জামাল আহমেদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়ার ডিসি।

ডিসি আসলাম হোসেন বলেন, দেশে যে বিপুল সংখ্যক বেকার যুবক রয়েছে, তারা যদি উদ্যোক্তা হয়ে কাজ শুরু করে, তবে দেশ বদলাতে খুব বেশি সময় লাগবে না। একইসঙ্গে বর্তমান সময়ে কৃষিক্ষেত্রে রাসায়নিক সারের পরিমাণ বেড়ে গেছে বিপুল পরিমাণে। আমাদের কৃষকদের সেখান থেকে সরে এসে জৈব সার বা ভার্মি কম্পোস্টে আগ্রহী হতে হবে।

মিরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ রমেশ চন্দ্র ঘোষের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ বিভূতি ভূষন সরকার।

আরো বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের অতিরিক্ত উপ-পরিচালক বিভাষ চন্দ্র সাহা, মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম, আমলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম মালিথা, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সাবিহা সুলতানা, সহকারী কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ফকির মহাম্মদ, অ্যাগ্রো অ্যালকামি'র প্রোপাইটর হোসাইন মোহাম্মদ সাগর, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা সাদ্দাম হোসেন, আব্দুল আলীম, লাভলী আক্তার প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে প্রায় পাঁচ শতাধিক কৃষক-কৃষাণী ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা ও উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে অতিথিবৃন্দসহ সকলেই কৃষি বিষয়ক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।

অনুষ্ঠান সম্পর্কে অ্যাগ্রো অ্যালকামি'র প্রোপাইটর হোসাইন মোহাম্মদ সাগর বলেন, স্বল্প পুঁজি ও কম পরিশ্রমে কেঁচো সার উৎপাদন করা যায়। এ ব্যবস্থাপনায় উপজেলা কৃষি অফিসও সাহায্য করেছেন নানাভাবে। কেঁচো সার ব্যবহারে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার পাশাপাশি ফসল উৎপাদনও বাড়ছে। আশা রাখি কৃষকরা ফসলের স্বার্থে রাসায়নিক সারের ব্যবহার কমিয়ে জৈব সার ব্যবহারের প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিবে।

ফেমাসনিউজ২৪/ কেআর/ এস