logo

বুধবার, ২৩ মে ২০১৮ | ৯ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫

header-ad

এবার ফেসবুকে যৌন হয়রানি করলেন সাংবাদিক!

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: ২৯ মার্চ ২০১৮

ফেসবুকে এবার এক সাংবাদিকের সঙ্গে কথোপকথনের স্ক্রিনশট প্রকাশ করে যৌন হয়রানির অভিযোগ এনেছেন এক তরুণী। তিনি একজন চাকরি প্রার্থী। বুধবার সকালে ভুক্তভোগী ওই তরুণী তার ব্যবহৃত ফেসবুক আইডিতে হয়রানি হওয়ার বিষয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন। স্ট্যাটাসে তিনি বলেন, পত্রিকায় রিপোর্টার হতে ইন্টারভিউ দিয়েছিলাম। ইন্টারভিউর রেজাল্ট এর পর জয়েন করতে বলেছিল। ঢাকার বাইরে থাকায় জয়েন করার বিষয়ে আমি পরে জানাবো বলেছিলাম। কিন্তু পরশু রাতে পত্রিকার চিফ রিপোর্টার শাহিন আমার ফেসবুক মেসেঞ্জারে অশ্লীল এসএমএস দেয়। আমি লজ্জায় ঘৃণায় স্তব্ধ হয়ে যাই। বড় সাংবাদিক হওয়ায় মামলা করার সাহস পাই নাই।

ওই তরুণী তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে আর উল্লেখ করেছেন, কয়েকজন সাংবাদিক আপুর সঙ্গে ঘটনাটি শেয়ার করায়, তারা সাহস দিয়েছে। আপুদের কাছে শেয়ার করার পর শুনলাম—সে এমন ধরনের খারাপ কথা অনেককেই বলেছে। একজন খারাপ, তার মানে সবাই খারাপ না। কিন্তু এমন কিছু মানুষের জন্য সবার বদনাম। প্রতিবাদ না করলে এরা আরও মেয়ের অপদস্থ ও সর্বনাশের চেষ্টা করবে।

স্ট্যাটাসের সঙ্গে ফেসবুক মেসেঞ্জারে কথোপকথনের দুটি স্ক্রিনশট ও একটি লিংক দেওয়া আছে। লিংকটিতে বুধবার দুপুর পর্যন্ত ক্লিক করলে দেখা যায়, শাহিন নামে একজনের ফেসবুক আইডি। তবে বিকাল থেকে সেটি ডিঅ্যাকটিভ পাওয়া গেছে। ফেসবুকে ফ্রেন্ড লিস্টে আছেন তার এমন ঘনিষ্ঠজনরা জানিয়েছেন, এটা শাহিন রহমানের আইডি। প্রসঙ্গত, ফেসবুক স্ট্যাটাসে উল্লেখ থাকা আপত্তিকর অংশটুকু ব্লার করে দেওয়া হলো।

ভুক্তভোগী তরুণী বলেছেন, গত জানুয়ারিতে রাজধানীর বাংলামোটরে ‘দৈনিক প্রকৃতির সংবাদ’ নামের পত্রিকায় চাকরির জন্য সাক্ষাৎকার দিতে গিয়েছিলেন। সেখানে তার সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়। কিন্তু চাকরিতে যোগ দেওয়ার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেননি তিনি। পরবর্তী সময়ে তাকে যোগ দিতে করতে অনুরোধ করেন পত্রিকাটির প্রধান প্রতিবেদক শাহিন। তিনি সর্বশেষ গত ২৬ মার্চ মেসেঞ্জারে ওই তরুণীকে আপত্তিকর মেসেজ পাঠান।

তবে দৈনিক প্রকৃতির সংবাদ পত্রিকায় চাকরির কোনো ইন্টারভিউ নেওয়া হয়নি উল্লেখ করে ওই পত্রিকার উপ-সম্পাদক গাজী জহির বলেন, ওই মেয়েটি মিথ্যা বলছে। আমাদের পত্রিকায় এখনও কোনো নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়নি। এখানে কারও সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়নি। জুন থেকে আমাদের নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হবে।

এ বিষয়ে অভিযোগকারী তরুণী জানান, তিনি প্রকৃতির সংবাদের অফিসেই চাকরির সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন। সাক্ষাৎকারের সময় শাহিনসহ দু’জন ছিলেন।

এদিকে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়ার পর শাহিন বিভিন্নভাবে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করেছেন বলে দাবি করেন অভিযোগকারী তরুণী। তিনি বলেন, বুধবার ফেসবুকে দেওয়ার পর আমাকে কয়েকজনের মাধ্যমে বিষয়টি আপস করা এবং দুঃখ প্রকাশ করার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু তিনি কেবল আমার সঙ্গে এমন করেছেন বলে মনে হয় না। আর কেউ যেন এ ধরনের পরিস্থিতির মুখোমুখি না হন, সেজন্য আমি এর একটি ব্যবস্থা নিতে চাই।

এবিষয়ে বক্তব্য জানতে অভিযুক্তের মোবাইল ফোনে কয়েকবার কল দিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টটিও বন্ধ রয়েছে।

ফেমাসনিউজ২৪/আরআর/আরইউ