logo

শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮ | ১ ভাদ্র, ১৪২৫

header-ad

‘খালেদা জিয়ার বেলায় কেন হচ্ছে না?’

ফেমাসনিউজ ডেস্ক | আপডেট: ১৩ জুন ২০১৮

সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) নিতে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে প্রস্তাব দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তিনি বলেছেন, সরকার চায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দিতে।

এর আগে খালেদা জিয়ার ভাইয়ের চিঠি নিয়ে সচিবালয়ে যান বিএনপির উপদেষ্টা বিজন কান্তি সরকার। তিনি সাংবাদিকদের কাছে প্রশ্ন রাখেন, কারাবন্দিদের বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার অসংখ্য নজির রয়েছে। খালেদা জিয়ার বেলায় কেন হচ্ছে না?

আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের কাছে এসব কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের ভাই শামীম ইস্কান্দার স্বাক্ষরিত একটি চিঠি আমাদের কাছে এসেছে। তারা নিজ খরচে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে করাতে চান বলে উল্লেখ করেছেন। সরকার চায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দিতে।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার অসুস্থতার কথা শুনে আমাদের সিভিল সার্জন, কারা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এবং তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকও তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। চিকিৎসকদের কাছে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে অসম্মতি জানিয়েছেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু হাসপাতালে দেশের বিখ্যাত এবং বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা রয়েছেন। কিন্তু খালেদা জিয়া সেখানে যেতে রাজি হননি। সরকার আবারও বিএনপির চেয়ারপারসনের কাছে সিএমএইচে চিকিৎসা নেয়ার জন্য প্রস্তাব দেবে।

আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, আমার মতে- সিএমএইচে তার চিকিৎসা নেয়া উচিত। সেখানে না নিয়ে অন্য কোনো হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়া উচিত না। কারণ দেশের সবাই সিএমএইচকেই শীর্ষস্থানীয় চিকিৎসাসেবা মনে করে। এখানে সব ধরনের চিকিৎসা ব্যবস্থা আছে।

খালেদা জিয়াকে ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার সুযোগ দিতে অসুবিধা কোথায় এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দিতে। ইউনাইটেড হাসপাতালের চেয়ে অনেকগুণ সমৃদ্ধ সিএমএইচ।

এ কথার পরিপ্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, নজির তো অনেক রয়েছে। এটা তো আমরা অস্বীকার করছি না। কিন্তু এ নজিরও তো রয়েছে যে, আমাদের নেত্রী মতিয়া চৌধুরীর একবার অস্ত্রোপচার হয়েছিল। সে সময় তো এ নজির মানা হয়নি। তবে আমরা সেদিকে যেতে চাই না।

তিনি বলেন, আমরা চাই খালেদা জিয়ার চিকিৎসা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে হোক। সরকারি হাসপাতালে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তার চিকিৎসা করাতে চেষ্টা করে যাব। তবে তার চিকিৎসা যেখানেই হোক, তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা সব সময় চিকিৎসা দেয়া ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার সময় সামনে থাকার সুযোগ পাবেন।

কারাগারে খালেদা জিয়ার বিশেষ ব্যবস্থার বিষয়ে আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসন একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী এবং একটি বড় দলের প্রধান হিসেবে তার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা সব সময়ই থাকে। ঈদেও থাকবে।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিশেষ আদালত। এ মামলার অপর আসামি খালেদা জিয়ার বড় ছেলে ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানসহ বাকি পাঁচজনকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। একইসঙ্গে তাদের দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা জরিমানাও করা হয়।

রায়ের পর পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে খালেদা জিয়াকে রাখা হয়েছে।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা দেখা করে জানান, সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া মাইল্ড স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছেন।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম