logo

শনিবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২০ | ৫ মাঘ, ১৪২৬

header-ad

সব পুড়ে ছাই, অক্ষত ‘লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ’

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

রাজধানীর চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে আশপাশের ঘর বাড়ি, ফ্যাক্টরি সব কিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। তবে অক্ষত আছে চুড়িহাট্টা শাহী জামে মসজিদ।

মসজিদটি দেখতে আসছেন হাজারো কৌতূহলী মানুষ। কেউ কেউ বলছেন, ‘এ মহান আল্লাহর অপার রহস্য।’ তেমনিভাবে রাজধানীর পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী চকবাজার এলাকার চুড়িহাট্টা মোড়ে গিয়ে একটু বাঁ দিকে ঘুরলেই চোখে পড়ল রাজমনি হোটেল।

পুরান ঢাকার জনপ্রিয় খাবারের হোটেলটি ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে ছাই। পুড়ে গেছে দোকানারের আসবাবপত্র থেকে শুরু করে সাটারও।

তবে হোটেলে প্রবেশদ্বারের উপরে ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ (স.)’ লেখা সংবলিত লেখাংশটুকু ঠিকই অবিকল অবস্থায় রয়েছে। আরবি ও বাংলা ভাষায় লেখা পবিত্র কালেমার প্রতি দৃষ্টি পড়ছে এলাকাবাসী সবারই।

গতকাল বৃহস্পতিবার ওই এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, পুরো এলাকাটি যেন এক মৃত্যুপুরীতে ধারণ করেছে। আগুনে পুড়ে যাওয়ার চিহ্ন বহন করছে এলাকার দালানকোটাসহ দোকানপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো। মালামালসহ সব জিনিসপত্রই পুড়ে ছাই।

রাজমনি হোটেলের সামনে গিয়ে দেখা যায়, দোকানের সামনের সাটার পুড়ে গেছে। দোকানের হাড়িপাতিলসহ আসবাবপত্রও পুড়ে গেছে। কালি ও কেমিক্যালের ধোঁয়ার চিহ্ন হোটেলের দেয়ালে দেয়ালে।

হোটেলের মালিক ও বয়-বেয়ারাদের ভাগ্যে কী ঘটেছে, তা কেউ বলতে পারছে না। তবে জয়নাল আবেদীন বাবুল নামে এক ব্যক্তি চা খাওয়ার জন্য গতকাল রাত ১০টা ২১ মিনিটে চা খেতে প্রবেশ করেন।

এ সময় তিনি তার মেয়ে নাসরিন আক্তারের সঙ্গে কথা বলেন। এর এক মিনিট পরই হোটেলটির সামনে থেকে বিকট শব্দ শুনতে পান নাসরিন।

নাসরিন আক্তার বলেন, ‘আব্বুর সাথে কথা বলার এক মিনিট পর ১০টা ২২ মিনিটে একটি বিকট শব্দ শুনতে পাই। এর পর পরই আব্বুর মোবাইলে ফোন করি। কিন্তু রিং হয় ফোন রিসিভ হয় না। ১০ টা ২৫ মিনেটের পর মোবাইলটি বন্ধ হয়ে যায়। আব্বুর মুখের আওয়াজ আর পাইনি। সেই থেকেই আব্বুকে খোঁজার চেষ্টা করছি।’

ফেমাসনিউজ২৪.কম/আরআই/আরবি