logo

রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭ | ৩ পৌষ, ১৪২৪

header-ad
ফরহাদ মজহার অপহরণ মামলা

চূড়ান্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে বাদীর নারাজি, শুনানি ৯ জানুয়ারি

আদালত প্রতিবেদক | আপডেট: ০৭ ডিসেম্বর ২০১৭

কবি ও কলামিস্ট ফরহাদ মজহার অপহরণসহ চাঁদা দাবি করার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)’র দেয়া চূড়ান্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে নারাজি দেয়ার জন্য সময় আবেদন করে মামলার বাদী ফরহাদ মজহারের স্ত্রী ফরিদা আক্তার।

বৃহস্পতিবার পুলিশের দেয়া চূড়ান্ত প্রতিবেদন বিষয়ে শুনানির দিন ধার্য ছিল। এদিন ফরহাদ মজহারের স্ত্রীর ফরিদা আক্তারের আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া ও সৈয়দ জয়নুল আবেদীন মেজবাহর মাধ্যমে ঢাকার মহানগর হাকিম মো. খোরশেদ আলমের আদালতে নারাজি দাখিল করার জন্য সময় আবেদন করেন। আদালত আইনজীবীর বক্তব্য ও শুনানি শেষে নারাজি প্রদান ও শুনানির জন্য আগামি ৯ জানুয়ারি ধার্য করেন।

তদন্ত কর্মকর্তা গত ১৪ নভেম্বর তদন্ত শেষে অভিযোগের বিষয়ে সত্যতা না থাকায় আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদনে দাখিল করে মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত ও হয়রানিমূলক অভিযোগ দায়ের করায় দণ্ডবিধির ২১১ ও ১০৯ ধারায় ফরহাদ মজহার ও তার স্ত্রী মামলার বাদি ফরিদা আক্তারের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশন মামলা দায়ের করার অনুমতি প্রার্থনা করেন ।

এমামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক মো. মাহাবুবুল ইসলাম আদালতের মোহাম্মদপুর থানার সাধারণ নিবন্ধন শাখায় সেদিন এ চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। আদালত ফরহাদ মজহারকে অপহরণ করে চাঁদা দাবির মামলাটি ৭ ডিসেম্বর ধার্য তারিখে চূড়ান্ত প্রতিবেদন ওপর শুনানি রাখেন।

২০১৭ সালের ৪ জুলাই উদ্ধারের পর ফরহাদ মজহার এবিষয়ে বিস্তারিত বর্নণা দিয়ে ঢাকার মহানগর হাকিম মো. আহসান হাবিবের আদালতে ভিকটিম হিসাবে ফৌ.কা.বিধির ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেছেন। গত ৩ জুলাই ভোরে শ্যামলীর রিং রোডের ১নং হক গার্ডেনের বাসা থেকে বের হওয়ার পরই নিখোঁজ হন ফরহাদ মজহার ঢাকার নিজ বাসা থেকে নিখোঁজ হওয়ার ১৯ ঘণ্টা পর যশোরের অভয়নগর থেকে উদ্ধার করা হয় তাকে। প্রথমে তাকে আদাবর থানা এবং পরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে নেয়া হয়।

ফেমাস নিউজ২৪ডটকম/এফ/এন