logo

বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮ | ৩ কার্তিক, ১৪২৫

header-ad

শিশুকে নেশামুক্ত করতে আদালতে আনলেন বাবা

অ্যাড. এমদাদুল হক লাল, আদালত প্রতিবেদক   | আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

মো. মিলটন মিয়া (৪৭)। তার একমাত্র ছেলে বার বছর বয়সী মো. রায়হানকে নেশামুক্ত করতে আদালতে  নিয়ে এসে তার বিরুদ্বে  চুরির মামলা করার আবেদন করেছেন । মহানগর হাকিম মাহমুদা আক্তারের আদালতে মঙ্গলবার শিশুকে নিয়ে  আসেন বাবা।

আদালতে এ শিশুর  বিরুদ্বে  মামলা করতে আসা কুমিল্লার লাঙ্গলকোটের কাকেরতলা গ্রামের বাসিন্দা মো. মিলটন মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, সে দুই মেয়ে, এক ছেলে জনক। একমাত্র ছেলে মো. রায়হানের বয়স ১২ বছর। রাজধানীর তুরাগ থানাধীন পাকুরিয়া এলাকার এ ব্লকের ৩ নম্বর রোডের  বাসায় পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকে ও ফুটপাতে ব্যবসা করেন। তার মেয়েরা পড়ালেখা করলেও ছেলে পড়ালেখা ছেড়ে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। সে এই বয়সে সিগারেট, গাঁজা ও ফেনসিডিল সেবন করেন। নেশার টাকা জোগার করতে সে বাসার জিনিসপত্র বিক্রি এবং টাকা চুরি করে। কোনোভাবেই তাকে নেশামুক্ত করা সম্ভব হয়নি।

তাই বাধ্য হয়ে কিছু দিন আগে তাকে টঙ্গীর কিশোর সংশোধন কেন্দ্রে নিয়ে যান বাবা। কিন্তু তারা বলেছে, আদালতের নির্দেশ ছাড়া সেখানে কাউকে রাখতে পারবেন না। এ কারনে  তাকে আদালতে নিয়ে এসেছেন মামলা করে কিশোর সংশোধন কেন্দ্রে পাঠানোর জন্য। আদালত মঙ্গলবার তাকে কিশোর সংশোধন কেন্দ্রে পাঠানোর আদেশ দেননি। আদালত বলেছেন, আরো এক সপ্তাহ দেখতে। অতঃপর ভালো না হলে তাকে আদালতে নিয়ে আসতে বলেছেন।

আইনজীবী মো. মনির হোসেন রিপন বলেন, আমরা আদালতে নেশার টাকার জন্য চুরি, মারধরের অভিযোগে ওই শিশুর বিরুদ্ধে মামলা করে ছিলাম। এ মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে নেশামুক্ত না হওয়া পর্যন্ত কিশোর সংশোধন কেন্দ্রে পাঠানোর আবেদন করেছিলাম।

আদালত কিশোর সংশোধন কেন্দ্রে না পাঠানোর বিষয়ে ওই আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর মো. আজাদ রহমান বলেন, শুনানির সময় আমরা শিশুটিকে বুঝিয়েছি। বিচারক নিজেও বুঝিয়ে বলেছেন। বিচারক এক সপ্তাহ থেকে ১০ দিন শিশুটিকে গ্রামের বাড়িতে রাখার পরামর্শ দিয়েছেন। অতঃপরও যদি ঠিক না হয়, তাহলে আদালতে নিয়ে আসতে বলেছেন।

ফেমাসনিউজ২৪/এসআর