logo

বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

দেশে শুরু হচ্ছে বড় অনলাইন শপিং উৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

দেশের শীর্ষস্থানীয় ১০টি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান সম্মিলিতভাবে দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন শপিং উৎসব। টেন টু টেন (১০-১০) শিরোনামের উৎসবটিতে থাকবে পণ্যের উপর ছাড়ের ছড়াছড়ি। এছাড়া ক্রেতাদের জন্য থাকবে নানা ধরনের সুযোগ সুবিধা। উৎসব চলাকালীন সময়ে প্রত্যেকটি কোম্পানির ফ্রি হোম ডেলিভারির সুবিধাতো থাকছেই।

আজ রোববার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে অবস্থিত আজকের ডিল অফিসে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আজকের ডিল ডটকমের সিইও একেএম ফাহিম মাশরুর, রকমারি ডটকমের হেড অব কম্যুনিকেশন অ্যান্ড ইনবাউন্ড মার্কেটিং মাহমুদুল হাসান সাদি, বাগডুম ডটকমের সিইও মিরাজুল হক, প্রিয়শপ ডটকমের ফাউন্ডার অ্যান্ড সিইও আশিকুল আলম খান, খাশফুডের সিইও হাবিবুল মোস্তফা আরমান, হাংরিনাকি'র ডিপুটি সিইও ইবরাহীম বিন মহিউদ্দিন, এসএসএল ওয়্যারলেসের হেড অব ই-কমার্স নাওয়াত আশেকিন, সেবা এক্সওয়াইজেডের লিড নিউ বিজনেস ও ইনভেস্টমেন্ট মেহাদ উল হক প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, দশদিনব্যাপী এ উৎসবে দেশের যেকোনো প্রান্তে প্রোডাক্ট অর্ডাররে ক্ষেত্রে ক্রেতা ফ্রি ডেলিভারি পাবে। থাকবে বিভিন্ন পণ্যে ৫০ থেকে ৭০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়ের ব্যবস্থা। মোবাইল পেমেন্টের মাধ্যমে পণ্য কিনলে ১০ থেকে শুরু করে ২০ শতাংশ পর্যন্ত ক্যাশব্যাক অফার থাকবে। উৎসবটি শুরু হবে আগামী ১ অক্টোবর। শেষ হবে ১০ অক্টোবর।

জানানো হয়, উৎসব চলাকালীন সময়ে এই ১০টি ই-কমার্স কোম্পানির ওয়েব সাইট থেকে যারা পণ্যের অর্ডার দেবে তাদের মধ্য থেকে লটারির মাধ্যমে ১০০ জনকে বাছাই করে বিশেষ পুরস্কার দেয়ার ব্যবস্থা রেখেছে কোম্পানিগুলো। প্রথম পুরস্কার থাইল্যান্ড ভ্রমণ। দ্বিতীয় পুরস্কার টিভি, তৃতীয পুরস্কার স্মার্টফোন।

এ সময় একেএম ফাহিম মাশরুর বলেন, আমার দেশিও কোম্পানিগুলো একসাথে কাজ করার উদ্দেশ্যে এ উৎসবের আয়োজন করা। শুধু এ উৎসবেই নয় আমরা প্র্রতিবছরে কয়েকবার এমন আয়োজন করব। এসব উৎসবে মানুষজনকে ই-কমার্স ব্যবসায় সাথে ভালোভাবে পরিচিত তুলে ধরব। আমাদের দেশের মানুষের মাঝে ব্যবসা নিয়ে সন্দেহ আছে। টেন টু টেন (১০-১০) শিরোনামে প্রতিবছর অক্টোবর মাসে একটি উৎসবের আয়োজন থাকবে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, আমারা যারা দেশিও মালিকানাধীন কোম্পানি আছি তারা অনেক সমস্যার মধ্য দিয়ে ব্যবসা করছি। তার মধ্য আমাদের দেশের মানুষদের মধ্য ই-কমাস পদ্ধতিতে বিশ্বাস কম। আমরা সাধারণ মানুষকে বুঝাতে পারিনি। কারণ আমরা সরকারের পক্ষ্য থেকে তেমন সহযোগিতা পাচ্ছি না।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ফাহিম মাশরুর বলেন, বিদেশি ই-কমার্স কোম্পানি আসুক তাতে আমাদের কোনো সমস্যা নেই। তবে তারা যেন আমাদের দেশের নিয়মের বাইরে গিয়ে তাদের ব্যবসা পরিচালনা করা সুযোগ না পায়।

অন্য এক প্রশ্নের জবাবে প্রিয়শফের ফাউন্ডার আসিকুল আলম খান বলেন, আমাদের মধ্যে বিদেশি প্রবণতা আছে। আমরা বিদেশি কোম্পানি বা তাদের পণ্যের না শুনলেই হুমরি খেয়ে পড়ি। আমাদের এ মানুসিকতার পরিবর্তন আনতে হবে।

আয়োজনকারী ই-কমার্স কোম্পানিগুলো হচ্ছে- আজকের ডিল, রকুমারি, বাগডুম, প্রিয়শফ, পিকাবো, অথবা, শেবাডট এক্সওয়াইজেট, খাশফুড, এনআরবিবাজার এবং হাংরিনাকি।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম