logo

রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ | ১০ আষাঢ়, ১৪২৫

header-ad

৪৭ বছর পর চবিতে স্বাধীনতা ভাস্কর্য

জাকারিয়া মামুন, চবি | আপডেট: ১৩ মার্চ ২০১৮

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বুদ্ধিজীবী চত্বরে ‘স্বাধীনতা ভাস্কর্য’নামের একটি স্মৃতি স্তম্ভ নির্মিত হতে যাচ্ছে। ভাস্কর মোহাম্মদ সোহরাব জাহানের নকশায় ভাস্কর্যটি নির্মাণ করা হবে। স্বাধীনতার এ মাসেই ভাস্কর্যটি দৃশ্যমান হবে বলে জানা যায়। প্রকল্পের কো-অর্ডিনেটর ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর আলী আজগর চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এদিকে ৫২' থেকে ৭১' এর মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে যথাক্রমে মাতৃভাষা ও মার্তৃভূমি রক্ষার জন্য এক নদী রক্ত ও তিন মিলিয়ন প্রাণ বিলীন করে দেয়ার ইতিহাসের শহীদ নায়কদের স্মরণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘অপরাজেয় বাংলা’, ‘স্বাধীন বাংলা’, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘সংশপ্তক’, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘স্ফুলিঙ্গ’, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ ভাস্কর্য '৭১ এর গণহত্যা ও মুক্তিযুদ্ধের প্রস্তুতিসহ বাংলাদেশের প্রায়শই বিশ্ববিদ্যালয় ও দেশের বিভিন্ন স্পটে ভাস্কর্যের উপস্থিতি থাকলেও দেশের অন্যতম বৃহৎ শিক্ষাঙ্গন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাধীনতার ৪৭ বছরেও কোন ভাস্কর্য ছিলনা।

অবশেষে স্বাধীনতার মাসেই পূর্ণ হতে যাচ্ছে চবির এই ভাস্কর্য শুন্যতা।

চবির নির্মিতব্য এই ভাস্কর্যটির ভাস্কর মোহাম্মদ শোহরাব জাহান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের বেশিরভাগ ভাষ্কর্যে নারীদের প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণ তেমনভাবে তুলে ধরা হয়নি। আমি চেষ্টা করেছি এ ভাষ্কর্যে নারীদের অংশগ্রহণ তুলে ধরার। মুক্তিযুদ্ধের প্রতি তরুণ সমাজের আগ্রহ, স্বাধীনতাবোধ তুলে ধরার চেষ্টায় ভাষ্কর্যে প্রায় ২০টি মানব অবয়ব ব্যবহার করা হয়েছে। এরমধ্যে মুক্তিযোদ্ধাদের দু’টি অবয়ব থাকবে এবং অন্য অবয়বগুলো হবে স্বাধীনতা পরবর্তী মানুষ।

তিনি আরও বলেন, ভাষ্কর্যের উচ্চতা হবে আনুমানিক ১৭-১৮ ফিট। এই ভাষ্কর্য নির্মাণে অংশগ্রহণ করতে পেরে নিজেকে খুবই সৌভাগ্যবান মনে হচ্ছে।

উল্লেখ্য, চটগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৬ সালের নভেম্বরে উদযাপিত 'সুবর্ণ জয়ন্তী' উদযাপনের আগেও চবির বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন 'আমরা চবিয়ান' শীর্ষক ব্যানারে ৫২ থেকে ৭১ সাল পর্যন্ত অধিকার আদায় ও স্বাধীনতা সংগ্রামে গণ মানুষের অংশগ্রহণের স্মৃতিস্বরূপ ক্যাম্পাসে ভাস্কর্য নির্মাণের দাবি তোলে।

পরবর্তীতে কর্তৃপক্ষ স্বাধীনতাযুদ্ধে ১ জন শিক্ষক, ১১ জন ছাত্র ও ২ জন কর্মচারীর অংশগ্রহণের দিকে ইঙ্গিত করেই ১৫ অবয়বের ভাস্কর্য নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছিল কর্তৃপক্ষ। ১৬ সালের এই উদ্যোগ বাস্তবায়ন না করলেও এবার ভাস্কর্য নির্মাণে হাত দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।
ফেমাসনিউজ২৪/প্রতিনিধি/এসআর