logo

রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ | ১০ আষাঢ়, ১৪২৫

header-ad

এইচএসসির প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে যেসব পদক্ষেপ

শিক্ষাঙ্গন ডেস্ক | আপডেট: ১৩ মার্চ ২০১৮

আগামী ২ এপ্রিল এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হবে। পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ট্রেজারি থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত নেয়ার সময় একজন ম্যাজিস্ট্রেট বা সমমর্যাদার কর্মকর্তা সঙ্গে থাকবেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমের সঙ্গে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মোহাম্মদ সোহরাব হোসাইনের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে ও নকলমুক্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠানে ১৩ মার্চ মঙ্গলবার দুপুরে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের অফিস কক্ষে এ বৈঠক হয়। দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে প্রায় এক ঘণ্টা বৈঠক চলে।

এসময় প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে ও নকলমুক্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠানে সরকারের মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের সতর্কতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের বিশেষ সহযোগিতা চেয়েছেন শিক্ষা সচিব।

শিক্ষা সচিব জানান, প্রশ্নপত্র ফাঁসমুক্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠানে বেশকিছু বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত হয়েছে। সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা অনুষ্ঠানে মন্ত্রিপরিষদ সচিব পূর্ণ সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। প্রশ্নপত্র ট্রেজারি থেকে কেন্দ্রে নিয়ে পরীক্ষা শুরু হওয়া পর্যন্ত একজন ম্যাজিস্ট্রেট বা সমমর্যাদার কর্মকর্তা সঙ্গে থাকবেন বলে জানান তিনি।

ম্যাজিস্ট্রেটসহ দায়িত্বশীল তিন কর্মকর্তার উপস্থিতি ব্যতীত প্রশ্নপত্রের খামের নিরাপত্তা ট্যাগ খোলা যাবে না। কোনও অবস্থাতেই দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন করা যাবে না। কোনও অসঙ্গতি দেখা দিলে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকেই জবাবদিহি করতে হবে।

সোহরাব হোসাইন জানান, পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে প্রশ্নপত্রের সেট কোড ঘোষণা করা হবে। কোনও অবস্থাতেই এর আগে সেটে কোড ঘোষণা করা যাবে না। প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকানো ও নকলমুক্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠানে সব বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসককে বিশেষ পদক্ষেপ নিতে চিঠি দেবেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

পরীক্ষার আগেই সব বিভাগীয় কমিশনার স্ব স্ব বিভাগের সব জেলা প্রশাসক, ইউএনওসহ পরীক্ষায় দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের নিয়ে বিশেষ সভা করবেন। সভায় পরীক্ষা অনুষ্ঠানে যথাযথ দায়িত্ব পালনের নির্দেশনা দেবেন। একইভাবে সব ইউএনও নিজ নিজ উপজেলার পরীক্ষায় দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের নিয়ে বিশেষ বৈঠক করবেন।

পরীক্ষা কেন্দ্রের ২০০ গজের মধ্যে ১৪৪ ধারা কঠোরভাবে প্রয়োগেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি নির্দেশনা দেয়া হবে।

শিক্ষা সচিব জানান, পরীক্ষার্থীকে আধ ঘণ্টা আগে আসন গ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে। এরপর কেউ আসলে কোনও অবস্থাতেই কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। কেন্দ্র সচিব এ বিষয়টি নিশ্চিত করবেন। দায়িত্বপ্রাপ্ত ছাড়া কেউ কেন্দ্রে প্রবেশ ও কেন্দ্রে মোবাইল ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হবে।

একাধিক প্রশ্ন সেট থাকলেও সেট কোড ঘোষণার আগ পর্যন্ত যাতে কোনও সেটই কেউ দেখতে না পারে তা নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম