logo

সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৯ আশ্বিন, ১৪২৫

header-ad

জবিতে নববর্ষের দিনেও পরীক্ষা!

এফ. অার. বিপুল, জবি | আপডেট: ১৩ এপ্রিল ২০১৮

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা নববর্ষ ১৪২৫-এ দিনেও মিডটার্ম দিয়েছেন উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সুমী আক্তার। বিভাগের ১৩তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের তিনি ফাইকোলজি নামক মেজর সাবজেক্টের মিডর্টাম পরীক্ষার তারিখ দেন নববর্ষের দিনে।

আবার নববর্ষের দিনটিও শনিবার হওয়ার কারণে সরকারিভাবে বন্ধের দিন। বাংলাদেশের সব সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো শুক্রবার ও শনিবার যথারীতি বন্ধ থাকে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের ১৩তম ব্যাচের এক শিক্ষার্থী জানান, বাংলা নববর্ষ বাঙালি জাতির একটি আনন্দময় ও উৎসবমুখর দিন। দিনটি সবাই তার পরিবার পরিজনসহ বন্ধু-বান্ধবদের নিয়ে ঘুরে বেড়ায় ও বর্ষবরণের মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশগ্রহণ করে। মানুষরা সাজে একটু নতুন রুপে।

তিনি জানান, কিন্তু আমাদের সেই ঐতিহ্যবাহী দিনে দেয়া হয়েছে মিডর্টাম পরীক্ষার তারিখ, যা সম্পূর্ণভাবে অমানবিক ও বাঙালি জাতির ঐতিহ্য ধারণের সাথে সাংঘর্ষিক বলে আমি মনে করি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অপর এক শিক্ষার্থী এ বিষয়ে বলেন, মেডাম এই দিনটি ব্যতীত অন্য কোনো দিন পরীক্ষা দিলেও আমাদের আপত্তি ছিল না, কিন্তু নববর্ষের দিনে পরীক্ষা দেয়াটা বাঙালি হিসেবে আমি যৌক্তিক মনে করি না।

নববর্ষের দিনই কেন পরীক্ষার তারিখ দেয়া হলো এ বিষয়ে উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষিকা সহকারী অধ্যাপক সুমী আক্তার বলেন, নববর্ষের দিন পরীক্ষা নিলে প্রবলেম কি? নববর্ষটা কোনো ফ্যাক্ট না। আর ওদের পরীক্ষার ডেটটা অনেকবার চেঞ্জ করা হয়েছে এবং ফাইনাল পরীক্ষাও ২২ তারিখ থেকে।

তিনি বলেন, তাই শিক্ষার্থীদের ভালো হবে মনে করেই পরীক্ষার ডেটটা ফিক্সড করেছি। কারণ নববর্ষের দিন ওরা তো এমনিতেই ক্যাম্পাসে আসবে, তাহলে আগে পরীক্ষাটা দিয়ে তারপর আনন্দ করলে আনন্দটাও হয়ে যাবে একসাথে।

এ বিষয়ে উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. হাসনা হেনা বেগম বলেন, পরীক্ষার বিষয়টি সম্পর্কে আমি অবগত নই। নববর্ষের দিন পরীক্ষা নেয়াটা কতটুকু যৌক্তিক জানতে চাইলে তিনি বলেন, অবশ্যই সেটা অযৌক্তিক। আমি বিষয়টি দেখছি।

অপরদিকে এবার বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা নববর্ষ ১৪২৫ উদযাপন উপলক্ষে চলছে মহাসমারোহে প্রস্তুতি। বেশ কয়েকদিন ধরেই বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগসহ অন্যান্য কয়েকটি বিভাগের শিক্ষার্থীরা এবং বাইর থেকে আগত কারুশিল্পীরা তৈরি করেছেন আকর্ষণীয় ২০ ফুট লম্বা কাঁঠাল, কাঠবিড়ালি, শেয়াল, কামরাঙা আতা ফলসহ নানান ধরনের কারুকার্য।

মঙ্গলশোভা যাত্রাও শুরু হবে ৯টায় এবং সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম