logo

দেশের বড় বড় প্রতিষ্ঠানে নেতৃত্ব দিচ্ছে স্ট্যামফোর্ডের শিক্ষার্থীরা

স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ। বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার ধানমন্ডীতে অবস্থিত একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। তবে ঢাকার মুগদার গ্রিন মডেল টাউন, ব্লক-এইচ, স্বাধীনতা স্মরণী ও অ্যাভিনিউ-৫ এ জমি ক্রয় করে নিজস্ব ক্যাম্পাস তৈরি করার প্রস্তুতি নিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। এটি ২০০২ সালে বাংলাদেশ সরকার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সনদ পেয়ে স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ নামে কার্যক্রম শুরু করে। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি ক্যাম্পাস আছে, একটি সিদ্বেশরী এবং অপরটি ধানমন্ডিতে অবস্থিত।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী নকী। বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টির চেয়ারম্যান ফাতিনাজ ফিরোজ। এর আগে ফাতিনাজ স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ-এর বোর্ড অব ট্রাস্টির ভাইস-প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি স্টামফোর্ডের সাথে সূচনালগ্ন থেকে যুক্ত রয়েছেন।

ফাতিনাজ ফিরোজ ছাড়াও ট্রাস্টি বোর্ডে আরও ১৪ জন সদস্য রয়েছেন। তারা হলেন- ইঞ্জিনিয়ার আলহাজ আবুল হাসেম মিয়া, মো. মাহাবুব আলম জাকির, মো. জাকির হোসেন, তাহমিনা খাতুন, ডা. ফারাহানাজ ফিরোজ, মিসেস ফারাহানাজ ফিরোজ, এস এম ইলিয়াস, প্রফেসর ডা. তালহা রহমান, মনিরুজ্জামন মনির, ব্যারিস্টার এ কে এম ফারহান, সেলিম হোসেন চৌধুরী, রুমনা হক রিতা, শামীম আরা হক কাকলি, আক্তার হোসেন লিটন।

বিশ্ববিদ্যালয়টিতে বর্তমান শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১২ হাজার। স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঁচটি অনুষদ আছে- ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ, বিজ্ঞান অনুষদ, কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ, আইন অনুষদ এবং প্রকৌশল অনুষদ।

বর্তমানে ১৪টি বিভাগে ৩২টি স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি প্রদানকারী প্রোগ্রাম রয়েছে। ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগ, ফার্মেসি বিভাগ, পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগ, অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগ, ইংরেজি বিভাগ, চলচ্চিত্র ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগ, সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগ, অর্থনীতি বিভাগ, লোকপ্রশাসন বিভাগ, আইন বিভাগ, কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগ, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগ, স্থাপত্য বিভাগ।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি ১৬ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যায়টির তৃতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এ সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হয়। সমাবর্তনে সভাপতিত্ব করেন শিক্ষামন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ। এবারের সমাবর্তনে ১ হাজার ৭৭২ জন শিক্ষার্থীকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি প্রদান করা হয়। এর মধ্যে পাঁচটি ফ্যাকাল্টি থেকে ৫ জনকে চ্যান্সেলর স্বর্ণপদক ও ২০ জনকে ভাইস চ্যান্সেলর পদক দেয়া হয়।

স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী নকী ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, অন্যান্য প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি আলাদা। এখানে একজন শিক্ষার্থীকে প্রকৃত শিক্ষা দিয়ে জীবনে চলার পথকে সহজ করে দেখানো হয়। আমাদের অধ্যাপক এবং প্রভাষক যারা আছেন প্রত্যেকেই প্রতিটি বিষয়ে অভিজ্ঞ। আমাদের অভিজ্ঞ অধ্যাপক এবং প্রভাষকদের দ্বারা একজন শিক্ষার্থী সঠিক গাইড লাইন পেয়ে থাকে। পড়াশোনার পাশাপাশি আমাদের শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন একটিভিসের সঙ্গে জড়িত।

তিনি বলেন, স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে পড়াশোনা শেষ করে সবস্তরে কাজ করছে আমাদের শিক্ষার্থীরা। দেশের বড় বড় প্রতিষ্ঠানে নেতৃত্ব দিচ্ছে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শুধু দেশেই নয় বিদেশেও আমাদের শিক্ষার্থীরা তাদের কাজের মধ্য দিয়ে দেশের মান উঁচুতে নিয়ে যাচ্ছে।

প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের খরচের বিষয়ে তিনি বলেন, ইউসিজি’র নিয়ম অনুসারে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে খরচ বাবদ ফি নেয়া হয়। তবে গরিব এবং মেধাবী শিক্ষার্থীদের একশ' শতাংশ ওয়েভার দিয়েও ভর্তি করা হয়।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম

 

#####|||||#####স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ, ঢাকা, অধ্যাপক, মোহাম্মদ আলী নকী, Stamford University Bangladesh, Dhaka, Professor, Mohammad Ali Noki#####|||||#####স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ। বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার ধানমন্ডীতে অবস্থিত একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। তবে ঢাকার মুগদার গ্রিন মডেল টাউন, ব্লক-এইচ, স্বাধীনতা স্মরণী ও অ্যাভিনিউ-৫ এ জমি ক্রয় করে নিজস্ব ক্যাম্পাস তৈরি করার প্রস্তুতি নিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। এটি ২০০২ সালে বাংলাদেশ সরকার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সনদ পেয়ে স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ নামে কার্যক্রম শুরু করে। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি ক্যাম্পাস আছে, একটি সিদ্বেশরী এবং অপরটি ধানমন্ডিতে অবস্থিত।