logo

বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৪ পৌষ, ১৪২৫

header-ad

জাবি শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে ভর্তিচ্ছু ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ

জাবি প্রতিনিধি | আপডেট: ৩১ অক্টোবর ২০১৮

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ২০১৮-১৯ সেশনে সি-১ ইউনিটের চারুকলা বিভাগে ভর্তিচ্ছু এক শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে ওই বিভাগের এক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে। বুধবার হয়রানির শিকার ভর্তিচ্ছু ছাত্রী প্রক্টর বরাবর অভিযোগ করেছেন।

অভিযুক্ত নাসিম ঐশ্বর্য চারুকলা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের (৪৫ ব্যাচের) শিক্ষার্থী। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে থাকেন।

অভিযোগপত্রে তিনি উল্লেখ করেছেন, আমি ঐশ্বর্যের কাছে ড্রইং শিখতে ভর্তি হই। এ জন্য গত ২৯ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ে আসার পর আমাকে ড্রইং শেখানোর নামে বিভিন্ন যায়গায় নেয়ার পর সর্বশেষ জিমনেসিয়ামের দ্বিতীয় তলায় নিয়ে যান। সেখানে আমি বিভিন্নভাবে যৌন হয়রানির শিকার হই।

তিনি উল্লেখ করেন, ঐশ্বর্য ড্রইং শেখানোর নামে বারবার আমার বুকে হাত দেয়ার চেষ্টা করেন। আমি নিষেধ করার পর তিনি আমাকে বলে এটাই শেখানোর নিয়ম। এরপর ঐশ্বর্য তার শরীরের গোপনাঙ্গ দেখিয়ে ছবি আঁকতে বলেন। এমন পরিস্থিতিতে আমি বিভ্রান্ত হয়ে আমার বাবা আমাকে ফোন করেছে, এমন অযুহাতে সেখান থেকে চলে আসি।

অভিযোগকারী ছাত্রীর স্থানীয় এক অভিভাবকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

এ ব্যাপারে নাসিম ঐশ্বর্যের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি আসলে মানসিকভাবে দুর্বল ছিলাম। আমার বিরুদ্ধে করা সব অভিযোগ স্বীকার করছি। আমি আমার দুর্বলতার জন্য সবার কাছে ক্ষমাপ্রার্থী। এছাড়া আমি ওই ছাত্রীর কাছেও ক্ষমা চেয়েছি।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর শিকদার মো. জুলকারনাইন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। তবে ছাত্রী চাইলে আইনের আশ্রয় নিতে পারে।

তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে ভর্তিচ্ছুদের পড়ানোর কোনো নিয়ম নেই। সে ভর্তিচ্ছুকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে পড়িয়ে আরো একটি নিয়ম ভঙ্গ করেছে। আর যারা এ নিয়ম ভঙ্গ করছে তাদের বিরুদ্ধেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে চারুকলা বিভাগের সভাপতি সহযোগী অধ্যাপক এম. এম. ময়েজ উদ্দিন বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। এটি আমার বিভাগের জন্য লজ্জাজনক। প্রক্টর বরাবর সেই ভর্তিচ্ছু লিখিত অভিযোগ দিয়েছে।
ফেমাসনিউজ২৪/প্রতিনিধি/এফএম/এমএম