logo

শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮ | ৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

শহীদ মিনারে আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: ১৯ অক্টোবর ২০১৮

কিংবদন্তি ব্যান্ড শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেয়া হয়েছে।

আজ শুক্রবার সকাল সোয়া ১০টায় তার মরদেহ শহীদ মিনারে নেয়া হয়। বেলা সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ব্যান্ড সংগীতের কিংবদন্তি এই শিল্পীর মরদেহ সেখানে রাখা হবে। এরপর বাদ জুমা মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে জাতীয় ঈদগাহ মাঠে। সেখানে প্রথম জানাজা শেষে মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে রাজধানীর তেজগাঁওয়ের চ্যানেল আই ভবনে। সেখানে দ্বিতীয় জানাজা শেষে মরদেহ সরাসরি শিল্পীর গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের নিয়ে যাওয়া হবে।

এদিকে শহীদ মিনারে তার মরদেহের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এসেছেন শিল্পী কুমার বিশ্বজিত, মানাম আহমেদ, শাফিন আহমেদসহ সংগীত ভুবনের অনেক তারকা। এ ছাড়াও রয়েছেন অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তফা ও শমী কায়সার।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসহ আরও কিছু রাজনৈতকি ব্যক্তিবর্গ এসেছেন। এর আগে তাকে স্কয়ার হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়েছিল।

গতকাল বৃহস্পতিবার তিনি মারা যান। সকালে নিজ বাসভবন থেকে স্কয়ার হাসপাতালে নেয়া হলে সকাল ৯টা ৫৫ মিনিটে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তার মৃত্যুর সংবাদ শুনেই হাসপাতালে ছুটে আসেন কণ্ঠশিল্পী সামিনা চৌধুরী, দলছুট ব্যান্ডের বাপ্পা মজুমদার, নির্মাতা হানিফ সংকেত, অভিনেতা আফজাল হোসেন, সংগীতশিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ, ফাহমিদা নবী, ফকির আলমগীর, রফিকুল আলম, তপন মাহমুদ, ফুয়াদ নাসের বাবু, পার্থ বড়ুয়া, অবসকিউরের সাইদ হাসান টিপু, হাসান আবিদুর রেজা জুয়েল, নাট্যজন নাসির উদ্দিন ইউসুফ, শিল্পী তপু, রুমি, কোনাল, মাহাদী, প্রিন্স মাহমুদ, ওয়ারফেইজের টিপু, কণা, এলিটা, অভিনেত্রী বন্যা মির্জাসহ অনেকে।

মৃত্যুর আগে এ রকস্টারের বয়স হয়েছিল ৫৬ বছর। তাকে ভারতীয় উপমহাদেশের শ্রেষ্ঠ গিটারিস্ট বলা হয়ে থাকে। আইয়ুব বাচ্চু চলে গেলেও তার গান, গিটারের ছয় তারের সুর বাঙালি শ্রোতাদের হৃদয়ে ধ্বনিত হবে যুগের পর যুগ।

ব্যান্ড দল এলআরবির লিড গিটারিস্ট ও ভোকালিস্ট আইয়ুব বাচ্চু ছিলেন একাধারে গীতিকার, সুরকার এবং প্লেব্যাক শিল্পী। এদিকে আজ শুক্রবার বাদ জুমা জাতীয় ঈদগাহ মাঠে জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে।

অন্যদিকে আইয়ুব বাচ্চুর ছেলে আহনাফ তাজোয়ার কানাডায় রয়েছেন। তিনি পরিসংখ্যান বিষয়ে পড়াশোনা করছেন ইউনিভার্সিটি অব ব্রিটিশ কলম্বিয়াতে। মেয়ে ফাইরুজ সাফরা আইয়ুব থাকেন অস্ট্রেলিয়ায়। আজ দুজনেই উড়ে আসছেন বাবাকে শেষ দেখা দেখতে।

দুপুরে জানাজা শেষে কিংবদন্তির মরদেহ নিয়ে চট্টগ্রামে যাত্রা শুরু করবে পরিবার। এরপর আগামীকাল দুপুরে মায়ের কবরেই সমাহিত করা হবে আইয়ুব বাচ্চুকে।

আইয়ুব বাচ্চুর আকস্মিক মৃত্যুর খবর শুনে গতকাল রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং সৌদি আরবে অবস্থানরত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদা গভীর শোক প্রকাশ করেন।

ব্যান্ড দল এলআরবির লিড গিটারিস্ট ও ভোকালিস্ট আইয়ুব বাচ্চু ছিলেন একাধারে গীতিকার, সুরকার এবং প্লেব্যাক শিল্পী। গিটারে আঙুলের স্পর্শে আর অসাধারণ গায়কিতে শুধু সংগীতানুরাগীদের মাতোয়ারা করেননি, রীতিমতো এ দেশের ব্যান্ডসংগীতকে একটি শিল্পে পরিণত করেছেন আইয়ুব বাচ্চু। গিটারের সুরের সঙ্গে কণ্ঠের কারুকার্যে এ দেশের অগণিত সংগীতানুরাগীদের হৃদয়ে ঝড় তুলেছিলেন ব্যান্ডসংগীতের এই রাজকুমার।

ফেমাসনিউজ২৪.কম/আরআই/আরবি