logo

বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৪ পৌষ, ১৪২৫

header-ad

৬৬ বছরের রুনা লায়লা

বিনোদন ডেস্ক | আপডেট: ১৭ নভেম্বর ২০১৮

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লা। সঙ্গীত জীবনে ১৮টি ভাষায় গান করেছেন তিনি। বাংলাদেশের মতো পাকিস্তান এবং ভারতেও তার ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে। এককথায় উপমহাদেশের হাতেগোনা কয়েকজন প্রথিতযশা সঙ্গীতশিল্পীর মধ্যে রুনা লায়লা অন্যতম। গুণী এই শিল্পীর ১৭ নভেম্বর শনিবার ৬৭ তম জন্মদিন।

রুনা লায়লা বরাবরই পারিবারিক আবহে সাদামাটাভাবে জন্মদিন পালন করেন। গত বছর পারিবারিকভাবেই নিজ বাসভবনে জন্মদিনের কেক কাটেন তিনি। তবে এবারের জন্মদিনে দেশে নেই রুনা লায়লা। কলকাতায় একটি পারিবারিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের মধ্য দিয়েই কেটে যাবে তার জন্মদিন।

পারিবারিক অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার জন্য গতকাল ১৬ নভেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যায় কলকাতার উদ্দেশে পাড়ি দেন তিনি। সেখানে দু’দিন থেকে আগামী ১৯ নভেম্বর তিনি ঢাকায় ফিরবেন।

রুনা লায়লা ১৯৫২ সালের এইদিনে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের সিলেটে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বাংলাদেশে চলচ্চিত্র, পপ ও আধুনিক সঙ্গীতের জন্য বিখ্যাত। তবে বাংলাদেশের বাইরে গজলশিল্পী হিসেবে দক্ষিণ এশিয়ার অন্য দেশে তার সুনাম আছে। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার আগে থেকেই তিনি চলচ্চিত্রের গায়িকা হিসেবে কাজ শুরু করেন।

বাংলাদেশ ছাড়াও ভারতীয় এবং পাকিস্তানি চলচ্চিত্রের অনেক গানে তিনি কণ্ঠ দিয়েছেন। রুনা লায়লা বাংলা, উর্দু, পাঞ্জাবি, হিন্দি, গুজরাটি, বেলুচি, পশতু, ফার্সি, আরবি, মালয়, নেপালি, জাপানি, স্পেনিশ, ফরাসি, লাতিন ও ইংরেজি ভাষাসহ মোট ১৮টি ভাষায় ১০ হাজারেরও বেশি গান করেছেন। পাকিস্তানে তার গান ‘দমাদম মাস্ত কালান্দার’ অত্যন্ত জনপ্রিয়।

স্বাধীনতা পদক, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (একাধিকবার), দাদা সাহেব ফালকে সম্মাননাসহ দেশ-বিদেশের বহু আন্তর্জাতিক পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন গুণী এই সঙ্গীতশিল্পী।

ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম