logo

বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৪ পৌষ, ১৪২৫

header-ad

খোলামেলা দৃশ্য নিয়ে খোলামেলা কথা এই সুদর্শিনীর!

বিনোদন ডেস্ক | আপডেট: ১৮ নভেম্বর ২০১৮

মুখের ওপর কথা বলে ফেলায় অভিনেত্রী কালকি কোয়েচলিনকে ঠোঁটকাটা বলেন অনেকে। তবে তিনি তা মোটেও কানে তোলেন না।

নিজের এ স্বভাবকে ইউএসপি করেই অল্পদিনের মধ্যে বলিউডে একটা নিজস্ব জায়গা করে নেন কালকি৷ আবারও মুখ খুললেন৷ প্রশ্ন তুললেন, বলিউডে অ্যাকশন সিনের কোরিওগ্রাফি হলে, ইন্টিমেট সিন, যাকে চলতি কথায় আমরা ‘রগরগে দৃশ্য’ বলে থাকি, সেগুলোর কোরিওগ্রাফি হবে না কেন?

সম্প্রতি একটি আলোচনা সভায় যোগ দেন তিনি৷ সেখানেই বলিউডের ঘনিষ্ঠ দৃশ্যগুলির শুটিং পদ্ধতি নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। উপস্থিত দর্শকদের সঙ্গে তিনি ভাগ করে নেন শুটিংয়ের এক ভয়ংকর অভিজ্ঞতা৷

জানান, এমন অভিনেতার সঙ্গে আমাকে ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের শুটিং করতে হয়েছে, যার ঠোঁট কামড়ানোর আগে পর্যন্ত আমি তাকে চিনতামই না, তার সঙ্গে আমার পরিচয় ছিল না৷ এমন পরিস্থিতি তৈরি হলে অভিনয়স্বত্তা সঠিকভাবে পরিস্ফূট হতে পারবে না৷

তিনি বলেন, দুজন অভিনেতার মধ্যে এভাবে বোঝাপড়া গড়ে উঠতে পারে না৷ এরপরেই তিনি প্রশ্ন করেন, যখন আমরা একটা সিনেমায় মারপিটের দৃশ্য শুটিং করি, তখন তা কোরিওগ্রাফ করা হয়৷ কেউ ভুল করেও একটা অতিরিক্ত ঘুষি মারতে পারে না৷ তবে ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের ক্ষেত্রে তেমনটা হয় না কেন?

সম্প্রতি বলিউডে ঝড় তুলেছে #MeToo বিতর্ক৷ অভিনেতা নানা পটেকরের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ করেছিলেন অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত৷ সেই থেকেই বলিউডে মাথাচাড়া দেয় এই বিতর্ক৷

এরপর থেকে একের পর এক অভিনেত্রীরা নামিদামি পরিচালক, প্রযোজকের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তা বা শ্লীলতাহানির অভিযোগে মুখ খোলেন৷ এ তালিকা থেকে বাদ পড়েননি কালকি কোয়েচলিন৷

বলিউডের বহু পুরনো রোগ ‘কাস্টিং কাউচ’-এর বিষয়ে তখন সরব হন তিনি৷ অভিযোগ করেন- বলিউডে পা রাখার পর তাকেও কুপ্রস্তাব দেয়া হয়৷ কিন্তু তা এড়িয়ে যান।

এখানেই শেষ নয়, ছোটবেলায় তার সঙ্গে ঘটে যাওয়া যৌন হেনস্তার বিষয়েও মুখ খোলেন ‘ডি-ডে’ খ্যাত এ অভিনেত্রী৷ তবে দুই ক্ষেত্রেই নির্দিষ্ট কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ করেননি কালকি৷

ফেমাসনিউজ২৪.কম/আরআই/আরবি