logo

রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭ | ৩ পৌষ, ১৪২৪

header-ad

ফেমাসনিউজের মাসিক সভা ও নৈশভোজ

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭

১৮ সেপ্টেম্বর রাজধানীর একটি রেস্টুরেন্টে ফেমাসনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকমের নিয়মিত মাসিক সাধারণ সভা ও নৈশভোজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন আইশোদোর প্রেসিডেন্টের সেক্রেটারি আই কো ওয়াতানাবে।

ফেমাসনিউজ টুয়েন্টিফোরের সাংবাদিক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতিতে নৈশভোজ শুরুর পূর্বে সংক্ষিপ্ত আলোচনায় অংশ নেন ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-এর সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি, বিশিষ্ট সমাজসেবক, জাপানের রিও মোবাইল ও বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রসাধনী এবং হেলথ প্রডাক্ট উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান আইশোদোর প্রেসিডেন্ট হিমু উদ্দিন, প্রধান সম্পাদক আবু সাইদ ও নির্বাহী সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান।

প্রাণবন্ত এ সভা ও ভোজে প্রতিষ্ঠানটির সাংবাদিক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও প্রতিনিধিরা তাদের বিভিন্ন দাবি, সমস্যা, সম্ভাবনা ও নিউজপোর্টালটি কীভাবে আরো মানুষের কাছে গ্রহণযোগ্য করে তোলা যায় তা নিয়ে খোলামেলা কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে ফেমাসনিউজের গত এক মাসের সার্বিক কার্যক্রম নিয়েও আলোচনা হয়। আলোচনা হয় প্রতিষ্ঠানকে কীভাবে আরো গতিশীল করা যায় সে বিষয়ে। 

অনুষ্ঠানে সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি হিমু উদ্দিন বলেন, একজন সাংবাদিকের দায়িত্ব বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করা। হিংসাত্মক মনোভাব নিয়ে যাতে কোনো সংবাদ পরিবেশন করা হয় না সেদিকে খেয়াল রাখা। একজন সাংবাদিকের দায়িত্ব হল লেখনির মাধ্যমে সমাজের কল্যাণে কাজ হয় এমন তথ্যবহুল সংবাদ তুলে ধরা। অবহেলিত-নির্যাতিত মানুষের পাশে দাঁড়ানো।

তিনি বলেন, প্রতিযোগিতার অনলাইন গণমাধ্যমের যুগে একজন সাংবাদিককে সব সময় চোখ-কান খোলা রাখতে হয়, যাতে সংশ্লিষ্ট ঘটনাটি মানুষ দ্রুত সময়ে জানতে পারে। এজন্য সময়ের মূল্য দিতে হবে। ‘সময় গেলে সাধন হবে না’-লালনের গানের মাথায় রেখে প্রত্যেককে যার যার অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে। এক সেকেন্ডকে তিনি টাকার অঙ্কে হিসাব কষেন বলেও জানান।

গরিব ও অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর প্রসঙ্গ টেনে সাদা মনের এই মানুষটি বলেন, আজ মিয়ানমারের রাখাইনে দেশটির সেনাবাহিনীর নির্মম নির্যাতনে প্রাণ বাঁচাতে কক্সবাজারের উখিয়ায় পালিয়ে এসেছেন রোহিঙ্গা মুসলিমরা। এই অসহায় মানুষদের জন্য সবাইকে এগিয়ে আসা উচিত। যার যতটুকু সামর্থ্য আছে তাই নিয়ে সহযোগিতা করা উচিত। অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ালে আল্লাহ তা’য়ালাও খুশি হন। তিনি সবাইকে আরো আন্তরিক ও সময়ানুবর্তিতার ওপর তাগিদ দেন।

প্রধান সম্পাদক আবু সাইদ বলেন, সবাই সহযোগিতার মনোভাব নিয়ে কাজ করলে আমরা আরো ভালো কিছু উপহার দিতে পারবো। প্রতিষ্ঠানের প্রতি ভালোবাসা থাকলে অনেকদূর এগিয়ে যায় সেই প্রতিষ্ঠান। আমি সবার কাছে সেই প্রত্যাশাটাই করবো। ফেমাসনিউজকে সাধারণ মানুষের মধ্যে গ্রহণযোগ্য করে তুলতে সঠিক সংবাদ সংগ্রহ এবং পরিবেশনের ওপর তাগিদ দেন তিনি।

ফেমাসনিউজের নির্বাহী সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান বলেন, ফেমাসনিউজ হচ্ছে একটি পরিবার। একটি টিমওয়ার্ক। এ পরিবারের সব সদস্যকেই তার নিজ নিজ জায়গা থেকে ভালো কিছু উপহার দিতে হবে। দায়িত্ব পালনে স্বচ্ছতা থাকতে হবে। ক্ষুদ্র ও দৃষ্টির অগোচরে ভুলগুলো শুধরে নিতে হবে। ক্ষুদ্র ভুলগুলো যাতে বৃহৎ আকারে ধরা না দেয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আমরা কারো পক্ষে নই, আমরা জনগণের পক্ষে-এ ধ্যান-ধারণা নিয়ে কাজ করতে হবে। মনে রাখবেন, কারো প্রতিপক্ষ হলে সেই প্রতিষ্ঠান বেশিদিন টেকে না।

সভায় অংশ নেন বিক্রমপুরের কৃতি সন্তান জার্মান আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ খালেক। তিনি মুক্তিযুদ্ধে চেতনাকে নতুন প্রজন্মের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে সাংবাদিকদের তাগিদ দেন। ফেমাস নিউজের রিপোটিংকে ধন্যবাদ জানিয়ে বর্তমান সরকারের সাফল্যকে লেখনির মাধ্যমে আরও বেশি করে তুলে ধরতে অনুরোধ করেন।

এছাড়া ফেমাসনিউজ২৪.কম এর সম্পাদক মো. শফিউল্লাহ সুমন পারিবারিক কাজে ঢাকার বাইরে থাকায় সভায় উপস্থিত থাকতে না পারলেও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আলোচনায় অংশ নেন।

আলোচনা শেষে সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে নৈশভোজ অনুষ্ঠিত হয়। হাসি, আনন্দ আর হৃদ্যতাপূর্ণ আচরণে প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে অনুষ্ঠান। উচ্ছ্বসিত সাংবাদিক-কর্মচারীরা আগামীদিনে শুধু নিজেরা নয়; সঙ্গে তাদের পরিবার-পরিজনকেও অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য, প্রতি মাসেই এ ধরনের ভোজের আয়োজন করে থাকে ফেমাসনিউজ কর্তৃপক্ষ। তারই ধারাবাহিকতায় ১৮ সেপ্টেম্বরের রাতে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়।

ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম