logo

মঙ্গলবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৮ | ১০ বৈশাখ, ১৪২৫

header-ad

ইছাপুরা উচ্চ বিদ্যালয় ও বিক্রমপুর কেবি ডিগ্রি মহাবিদ্যালয়ের বন্ধু মহলের মিলন মেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: ১৪ জানুয়ারি ২০১৮

‘বন্ধু অতি মনের আপন, গড়ে তুলে মস্ত বাধন। থাকে সুখে-দুখে পাশে গভীর ভালোবেসে। যত আছে মনের কথা, শেয়ার করি যথা-তথ। বন্ধু হয় আনন্দের সাথি, একত্রে হয় মাতামাতি।’

কবিতার এমন কাব্যিকতার মতই বন্ধুত্বের আলিঙ্গনে মাতামাতিতে স্কুলজীবনের স্মৃতিতে ফিরে গিয়েছিলেন ইছাপুরা উচ্চ বিদ্যালয় ও বিক্রমপুর কেবি ডিগ্রি মহাবিদ্যালয়ের ক’জন বন্ধু। খোস-গল্প আর জমানো নানা কথার মধ্য দিয়েই কাটে কয়েকটি ঘণ্টা। জীবনের ফেলা আসা স্বর্ণ অতীতকে সামনে রেখে বন্ধুদের এমন মিলন-বন্ধন ছিল চোখে পড়ার মত।

দীর্ঘ ৩৪ বছর পর বন্ধুত্বের টানে গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর রমনায় একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্টে একত্রিত হয়েছিলেন তারা।

১৯৮৪ সালে ইছাপুরা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এই বন্ধু মহল মাধ্যমিকের গণ্ডি পেরিয়ে যুক্ত হন বিক্রমপুর কেবি ডিগ্রি মহাবিদ্যালয়ে। জীবনের দীর্ঘ সময় পার করেও কমেনি তাদের বন্ধুত্ব। অটুট রয়েছে ঠিক স্কুলজীবনের মতই। হয়তো বাহ্যিকভাবে বেড়েছে তাদের বয়স, তবে বাড়েনি বন্ধুত্বের সেই ছোটবেলার খুনসুঁটি, মাতামাতি আর নানা বিষয় নিয়ে গল্পে মেতে ওঠা।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই একে একে জড়ো হতে থাকেন বন্ধুরা। দীর্ঘদিন পর বন্ধুদের দেখতে পেয়ে একে অন্যকে জড়িয়ে ধরে আবেগি হয়ে ওঠেন। তবে সেই আবেগ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি তাদের দুষ্টুমি আর কথার জালে। অল্প সময়েই হাসি, আনন্দ আর গল্পের শব্দে মুহুরিত হতে থাকে পুরো রেস্টুরেন্ট।

বন্ধুদের একত্রিত হয়ে খুনসুঁটির মুহূর্তের ভাব প্রকাশ করতে গিয়ে মিনা দে বলেন, দীর্ঘ দিন পর বন্ধুদের কাছে পেয়ে অনেক ভালো লাগছে। কতটা খুশি তা ভাষায় প্রকাশ করার মত না। বন্ধুদের কাছে পেয়ে সেই স্কুলজীবনে ফিরে গেছি। প্রাণচাঞ্চল জীবনে। ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতির বড় ভাই কানাডা প্রবাসী

খায়রুল ইসলামের উদ্যোগে বন্ধু মো. আরিফুর রহমান এবং মাহে আলম জেমসের কয়েক দিনের নিরলস পরিশ্রম, সব বন্ধুর সাথে টেলিফোন এবং বিভিন্ন মাধ্যমে যোগাযোগের ফলেই দীর্ঘ ৩৪ বছর পর বন্ধুদের এই মিলন মেলা সফল হয়েছে।

বন্ধু মহলের এমন অনুষ্ঠানে যুক্ত হন ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি, বিশিষ্ট সমাজসেবক, জাপানের রিও মোবাইল ও বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রসাধনী এবং হেলথ প্রোডাক্ট উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান আইশোদোর প্রেসিডেন্ট হিমু উদ্দিন। তার উপস্থিতিতে নতুন মাত্রা যুক্ত হয় মিলনস্থলে। একে একে সবার সাথে দেখা করে খোঁজ-খবর নেন এবং কুশল বিনিময় করেন হিমু উদ্দিন।

এসময় তিনি বলেন, দীর্ঘ ৩৪ বছর পর বন্ধুদের একত্র হওয়া অনেক আনন্দের। এ অনুষ্ঠানে আমি আসতে পেরে গর্ব অনুভব করছি।

নিজের সফল জীবনের কিছু অধ্যায় তুলে ধরে হিমু উদ্দিন বলেন, মা-বাবার দোয়ায় আজ আমি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নিজের প্রতিষ্ঠান দাঁড় করিয়েছি। তার পরেও আমি আপনাদের মাঝে হুমায়ূন আহমেদের হিমু নয়; সবার হিমু হয়ে থাকতে চাই।

অবশেষে তিনি সবার হাতে ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের মাসিক ম্যাগাজিন ‘লাইফস্টাইল’ তুলে দেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের নির্বাহী সম্পাদক হাবিবুর রহমান।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম