logo

মঙ্গলবার, ২২ মে ২০১৮ | ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫

header-ad

তরুণ প্রজন্মের ফাল্গুন

মো. রিয়াল উদ্দিন | আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

বাঙালি সংস্কৃতির অন্যতম উৎসব বসন্তবরণ। আবাল-বৃদ্ধা, তরুণ-তরুণীরা বসন্ত উম্মাদনায় মেতে উঠবে। তবে তরুণদের মাঝে এ উম্মাদনা ধরা দেবে ফাগুনের আগুনে। জ্বলে উঠবে নতুন ভাবনায়, নতুন সাজে।

শীতকে বিদায় জানানোর মধ্য দিয়েই বসন্তবরণে চলবে ধুম আয়োজন। শীত চলে যায় রিক্ত হস্তে, আর বসন্ত আসে ফুলের ডালা সাজিয়ে। বাসন্তী ফুলের পরশ আর সৌরভে কেটে যাবে শীতের জরা-জীর্ণতা। প্রকৃতি সাজবে তার নতুর রূপে। গাছে গাছে ফুল ফুটুক আর নাই-বা ফুটুক, বসন্ত তার নিজস্ব রূপ মেলে ধরবেই। মন রাঙিয়ে বাঙালি তার দীপ্ত চেতনায় উজ্জীবিত হবে।

তরুণদের মাঝে এ দিনটি ধরা দেয় উজ্জ্বলতার প্রতীক হিসেবে। সমস্ত গ্লানি দূর করে নতুনভাবে পথ চলতে শেখায়। প্রকৃতির সাজে নতুন রুপে নিজেকে সাজায়। নতুন ফুলে কুড়ির মত তরুণ-তরুণীদের মাঝেও ফোটে নতুন আভা, যা নতুনদের অনুপ্রাণিত করে পথচলায়। এ দিনটিকে ঘিরে তরুণ প্রজন্মের থাকে নানা পরিকল্পনা। ছেলে-মেয়েরা সাজবে নতুন সাজে। মেয়েরা পরবে বাসন্তি শাড়ি, মাথায় ফুলের মালা, হাতে কাচের চুড়ি আর ছেলেরা পরবে পাঞ্জাবি।

পহেলা ফাল্গুনের ভাবনা এবং তরুণ প্রজন্মের করণীয় নিয়ে কথা হয় কয়েকজন তরুণের সাথে। তারা জানান, পহেলা ফাল্গুন মানেই নতুন কিছু। প্রকৃতি যেমন নতুনভাবে সাজে, প্রকৃতির সাথে তাল মিলিয়ে মানুষও নতুনভাবে সাজতে চায়। বিশেষ করে শহুরে জীবনে উৎসব মানেই ভিন্ন মাত্রা। ইট-পাথরের জীবন থেকে বের হয়ে একঘেয়েমি জীবন থেকে মুক্তি নিয়ে একটু আনন্দ নিতে তরুণ-তরুণীরা ছুটে চলে দর্শনীয় স্থানগুলোতে। সারাদিনই ব্যস্ত সময় পার করে তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধিরা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সালাউদ্দিন। তিনি তরুণ প্রজন্মের একজন প্রতিনিধি। তিনি ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, এ দিনটি আমাদের কাছে অন্য দিনগুলো থেকে আলাদা। এ দিনকে ঘিরে অনেক আগে থেকেই পরিকল্পনা থাকে। সারাদিন বন্ধুদের সাথে ঘুরবো, টিএসসিতে আড্ডা হবে। প্রকৃতির মত নতুন সাজে সাজবে সবাই।

মিথীলা নামের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রী ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, এ দিনটা আমার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এদিন আমাদের ক্যাম্পাসে বিভিন্ন প্রোগ্রাম হয়। সব বন্ধুরা একত্রিত হবো। সবাই মিলে শাড়ি পরবো। মাথায় ফুলের মালা পরবো। হাতে কাচের চুড়ি পরবো। পুরনোকে ভুলে নতুনভাবে সব শুরু করবো।

ইডেন মহিলা কলেজের ছাত্রী শারমিন শিখা। পহেলা ফাল্গুন নিয়ে তার ভাবনা জানান ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে। তিনি বলেন, পহেলা ফাল্গুন যদিও সবার কাছে একটা উপলক্ষ। কিন্তু আমার কাছে বন্ধুদের সাথে কাটানোর জন্য আরো বেশি স্পেশাল। পড়ালেখার মাঝে বন্ধুদের সাথে কাটানোর জন্য এর থেকে ভালো সময় হয় না। তাছাড়া মেয়েদের পাশাপাশি প্রকৃতিও নতুন রূপে সজ্জিত হয়। মেয়েরা বাসন্তি শাড়ি, ফুলের গহনা পরে সাজে। ক্যাম্পাসে ক্যাম্পাসে তরুণ প্রজন্ম বসন্তকে বরণ করে নেয় এ দিনে।

ছবি : আহ্কাফ জিরাদ চয়ন

ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম