logo

মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ | ১ কার্তিক, ১৪২৫

header-ad

বাউফলের তরুণদের প্রতিনিধি রাসেল

মো. রিয়াল উদ্দিন | আপডেট: ০২ মে ২০১৮

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পটুয়াখালী-২ (বাউফল) আসনে আওয়ামী লীগ নেতা জোবায়দুল হক রাসেলকে নৌকার প্রার্থী হিসেবে দেখতে চায় তরুণ ভোটাররা। এরই মধ্যে বাউফলের তরুণ প্রজন্মের আস্থা অর্জন করে তাদের সব কার্যক্রমে অংশ নিচ্ছেন রাসেল।

তরুণদের যেকোনো প্রয়োজনে সাড়া দেন এই সাবেক ছাত্র নেতা। তরুণদের নিয়েই তিনি স্বপ্ন দেখেন। বিভিন্ন সময় নানা আয়োজনের মাধ্যমে তরুণদের উৎসাহ-উদ্দীপনা যোগান। এরকমই সৃজনশীল নানা কাজের মাধ্যমে সখ্য গড়ে উঠেছে এই নেতার।

জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে পটুয়াখালী-২ বাউফল থেকে তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধি হিসেবে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন এই তরুণ নেতা।

নৌকার প্রার্থী বাছাইয়ে এবার সতর্ক অবস্থানে আওয়ামী লীগ। বেশকিছু যোগ্যতাকে সামনে রেখে প্রার্থী বাছাই করবে দলের হাইকমান্ড। ভালো ইমেজ, রাজনীতিক হিসেবে এলাকায় সুপরিচিত, সংগঠক হিসেবে দক্ষ, সততা, নিষ্ঠা ও শিক্ষিত- এমন যোগ্যতা রয়েছে যাদের, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাবেন তারা।

আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দেয়া এসব বৈশিষ্ট্যের সব ক'টিই রাসেলের মধ্যে আছে বলে মনে করছেন তরুণ ভোটাররা। তাদের মতে, যাকে আমরা সব সময় কাছে পাই, তাকেই আগামী নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হিসেবে দেখতে চাই। রাসেলও একজন তরুণ নেতা। তিনি তরুণদের মনের কথা বোঝেন। তরুণ প্রজন্মের সঙ্গে তার সখ্যতা রয়েছে। এলাকার উন্নয়নে তরুণের কোনো বিকল্প নেই। একইসঙ্গে রাসেলের নেতৃত্বে বাউফলে তরুণদের যে ঐক্য গড়ে উঠেছে তা অন্য কারো পক্ষে করা সম্ভব নয়।

বাউফলের ছাত্রলীগকর্মী তরুণ ভোটার মেহেদী হাসান ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, জোবায়দুল হক রাসেল বাউফলের তরুণদের আস্থার প্রতীক। আমি এবারই প্রথম ভোট দেব। তরুণদের প্রতিনিধি হিসেবে আমি রাসেলকেই সাপোর্ট করবো। কারণ তিনি সব সময় আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন, কথা বলেন এবং আমাদের সব ধরনের আবদার মেনে নেন। তাছাড়া তরুণদের মাঝে উদ্দীপনা যোগান রাসেল। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে রাসেল মনোনয়ন পেলে তরুণ প্রজন্মের সবাই এক হয়ে তার পক্ষে কাজ করবে।

নিজ ইচ্ছের কথা জানিয়ে জোবায়দুল হক রাসেল ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আমি তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধি। তরুণদের সঙ্গে আমার সম্পর্ক ভালো। তাদের সঙ্গে সব সময় থেকেছি আগামীতেও থাকবো। আমি নিজেও একজন তরুণ। তরুণদের চাওয়া-পাওয়া আমি বুঝি। তাছাড়া আমার কাজ করার গতি আছে। এলাকার উন্নয়নে সব সময় নিজেকে নিয়োজিত রাখতে পারব। দলীয়ভাবে এলাকার উন্নয়নে রাস্তাঘাট, স্কুল-কলেজের জন্য বরাদ্দ নিতে পারব। বেকারদের কর্মসংস্থান করতে পারব। আমি এলাকার উন্নয়নের জন্য দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে চাইতে পারব। এলাকার উন্নয়নে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে।

বাউফলের জনগণের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আমি বাউফলের রাসেল হয়ে থাকতে চাই, বিচারপতির ছেলে হিসেবে নয়। এলাকার ছেলে হিসেবে সব সময় জনগণ আমাকে পাশে পাবেন।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম