logo

মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৪ পৌষ, ১৪২৫

header-ad

আ.লীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে : ইঞ্জিনিয়ার সবুর

মো. রিয়াল উদ্দিন | আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

আইইবির প্রেসিডেন্ট ও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুমিল্লা-১ আসন (দাউদকান্দি-মেঘনা) থেকে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী তিনি।

জাতীয় নির্বাচনে দলের মনোনয়ন, এলাকার উন্নয়ন এবং নিজের জনপ্রিয়তা নিয়ে ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের সঙ্গে একান্তে কথা বলেন ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর।

আপনি একাদশ জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী কেন?

ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর : আমার ছাত্ররাজনীতি থেকে শুরু করে দীর্ঘ ৪০ বছর ধাপে ধাপে আওয়ামী লীগের সঙ্গে জড়িত। প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ থেকে ছাত্রসংসদের জেনারেল সেক্রেটারি ছিলাম। আমি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য, আওয়ামী লীগের দুবার সহ-সম্পাদক ছিলাম। এখন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। এছাড়াও ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনের দুবার জিএস, ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং জেনারেল সেক্রেটারি ছিলাম। এখন ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হয়েছি। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা এবার নিয়ে তিনবার ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থেকে প্রমাণ করেছেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার কাছে বাংলাদেশ নিরাপদ।

'বাংলাদেশ যে আজকে উন্নয়নের মহাসড়কে তা আমাদের প্রাণপ্রিয় নেত্রীর কারণেই সম্ভব হয়েছে। আজকে সারাদেশের মানুষ মনে করে- শেখ হাসিনা যদি ক্ষমতায় থাকেন, তিনি যদি আবারও নির্বাচিত হন তবেই বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে অবস্থান করবে এবং উন্নয়নের জয়যাত্রা অব্যাহত থাকবে। আমি একজন প্রকৌশলী হিসেবে এলাকায় অনেক কাজ করেছি এবং আগামীতে কাজ করার অনেক ইচ্ছে রয়েছে। বিশেষ করে কাজ করার ইচ্ছে থেকেই আমি নির্বাচন করতে চাই এবং আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশা করছি। মনোনয়ন বোর্ড এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি আমাকে মনোনয়ন দেন তবে দাউদকান্তি এবং মেঘনাবাসী আমাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করবেন। একইসঙ্গে আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে।'

দাউদকান্তি-মেঘনা থেকে এবার আওয়ামী লীগের নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী অনেক নেতা রয়েছে, তাদের থেকে নিজেকে কেন মনোনয়নের যোগ্য মনে করছেন?

ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর : আওয়ামী লীগ এই উপমহাদেশের মধ্যে একটি প্রাচীনতম প্রতিষ্ঠান, যা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে গঠিত এবং তার কন্যা শেখ হাসিনার কারণে বিশ্বব্যাপী সমাদৃত। আওয়ামী লীগের মত একটি সুবিশাল সংগঠনে একাধিক প্রার্থী থাকাটাই স্বাভাবিক। একইসঙ্গে প্রতিযোগিতাও থাকবে। তার পরেও আমরা ঐক্যবদ্ধ থেকে নৌকার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। আমার সার্বিক বিবেচনায় যোগ্যতার দিক থেকে দাউদকান্তি- মেঘনাবাসী এবং আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ড আমার বিষয়ে চিন্তা করবে। প্রকৌশলী হিসেবে আমার কাজ করার যোগ্যতা রয়েছে, যা হয়তো অন্যদের থেকে আমাকে আলাদা করেছে। এলাকাবাসীর বিশ্বাস রয়েছে যে, আমি নির্বাচিত হলে এলাকায় উন্নয়ন হবে। তারও জানেন- আমি নমিনেশন চাইলে পাব।

এলাকায় আপনার জনপ্রিয়তা কেমন?

ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর : আমার ছাত্রজীবন থেকেই এলাকার সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক। এলাকার সব উন্নয়নের সঙ্গে আমি সব সময় জড়িত। বঙ্গবন্ধুর সৈনিক হিসেবে নিবেদিতভাবে কাজ করে যাচ্ছি।

আপনার এলাকার ভোটাররা আপনাকে কেন ভোট দেবে?

ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর : ভোটাররা বিশ্বাস করেন- বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার কাছে বাংলাদেশ নিরাপদ। এ সরকারই পারে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে। শেখ হাসিনার একজন কর্মী হিসেবে ছাত্ররাজনীতি থেকে আওয়ামী রাজনীতি পর্যন্ত এলাকাবাসী আমাকে দেখেছেস। তারা বিশ্বাস করেন- দাউদকান্তি-মেঘনার সার্বিক উন্নয়ন যদি করতে হয় তবে আমার কোনো বিকল্প নেই।

মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হলে এলাকার কি কি উন্নয়ন করবেন?

ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর : প্রধামন্ত্রী এরই মধ্যে ঘোষণা দিয়েছেন বুলেট ট্রেনের। এটা হলে ঢাকা থেকে কুমিল্লা যেতে এক ঘন্টা, মেঘনায় যেতে আধা ঘন্টা এবং দাউদকইন্দতে যেতে ২০ মিনিট সময় লাগবে। দাউদকান্তি-মেঘনাতে বেড়িবাঁধ নির্মাণ করবো। এতে করে আশপাশের থানাগুলোর জনগণ তিনটি ফসল উৎপাদন করতে পারবেন। মানুষের জীবনযাত্রার মান বৃদ্ধি পাবে। এছাড়াও মেঘনা এবং দাউদকান্দিতে দুটি সেটেলাইট টাউন তৈরি করবো। এলাকায় পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট, কলেজ, বিশ্ববিদ্যাল, মেডিকেল কলেজ তৈরির উদ্যোগ নেব। বিশেষ করে শিক্ষার ক্ষেত্রে গুরুত্ব দেব। শিক্ষিত, নিরক্ষরমুক্ত দাউদকান্তি-মেঘনা গড়ে তুলবো।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম