logo

১২ বছর পর শোনা গেল নবজাতকের কান্না!

‘শুক্রবার আচমকা আমার প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয়। একটু পরই বুঝতে পারি সন্তান জন্ম দিতে চলেছি।’ আশ্চর্জের খবর হলো- ওই নারী জানতেনই না তিনি অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় রয়েছেন!

দীর্ঘ ১২ বছর পর সন্তান জন্ম নিল ব্রাজিলের একটি দ্বীপে। শুনতে অবাক লাগলে আদতে ঘটনা কিন্তু সত্যই!

দ্য গাডিয়ান জানায়- ব্রাজিলের ‘ফার্নান্ডো দে নর্নাহা’দ্বীপের হাসপাতালে কোনো মেটারনিটি বিভাগ নেই। তাই কোনো প্রসূতির সন্তান জন্ম নিলে অনেক সমস্যায় পোহাতে হয় চিকিৎসকদের। এজন্য এ দ্বীপে সন্তান জন্মানোই নিষিদ্ধ করে দেয় স্থানীয় প্রশাসন।

জানা যায়, ওই দ্বীপে কমপক্ষে ৩ হাজার মানুষ বসবাস করেন। এতদিন এ দ্বীপের হবু মায়েদের সন্তান জন্ম দেওয়ার জন্য যেতে হতো ৩৬৫ কিলোমিটার দূরে নাটল নামক এক শহরে। সমুদ্রের ওপর দিয়ে যেতে হতো দীর্ঘ পথ। গত শুক্রবার এখানেই এক সন্তানের জন্ম দেন এক মহিলা। তবে এ বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসন জানায়, ওই দম্পতিও জানত না, ওই মহিলা অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় রয়েছেন।

ওই মহিলা জানিয়েছেন, ‘শুক্রবার আচমকা তার প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয়। একটু পরই তিনি বুঝতে পারেন, তিনি সন্তান জন্ম দিতে চলেছেন। তিনি যে গর্ভবতী রয়েছেন, তা তিনি আগে থেকে জানতেনই না।’

এ মহিলার আগেও একটি সন্তান রয়েছে। তখনো নাটল শহরের হাসপাতালে গিয়ে সন্তান জন্ম দিতে হয় তাকে।

ফেমাসনিউজ২৪.কম/আরআই/আরবি

#####|||||#####১২ বছর পর শোনা গেল নবজাতকের কান্না! ‘শুক্রবার আচমকা তার প্রসব যন্ত্রনা শুরু হয়। একটু পরই তিনি বুঝতে পারেন তিনি সন্তান জন্ম দিতে চলেছেন।’ কিন্তু ওই নারী জানতেনই না তিনি অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় রয়েছেন।#####|||||##### ১২ বছর পর শোনা গেল নবজাতকের কান্না! ‘শুক্রবার আচমকা তার প্রসব যন্ত্রনা শুরু হয়। একটু পরই তিনি বুঝতে পারেন তিনি সন্তান জন্ম দিতে চলেছেন।’ কিন্তু ওই নারী জানতেনই না তিনি অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় রয়েছেন।