logo

বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮ | ৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

মাসিক বেতনে চোর নিয়োগ!

অন্যরকম খবর ডেস্ক | আপডেট: ১২ অক্টোবর ২০১৮

বেকারত্ব সমাজে এক দুরারোগ্য ব্যাধির মতো। চাকরি না পাওয়ার যন্ত্রণা যে কী তা বেকার যুবকই বুঝতে পারে। কিন্তু ভারতের জয়পুরের ২১ বছরের এ যুবক বেকারত্বের মর্ম বুঝতে পেরেছিল। তাই তিনি তার নিজের অধীনে মাসে ১৫ হাজার টাকা বেতন দিয়ে ছয়জন বেকার যুবককে কাজে ঢোকান।

যদিও কাজটা শোনার পর চক্ষু চড়কগাছ। ২১ বছরের ওই যুবক তার ছয়জন কর্মীকে দিয়ে বিভিন্ন এলাকায় বাইক, সোনার হার এবং মোবাইল ফোন চুরি করাতেন। শুধু তাই নয়, এ চুরির জন্য বেতনের পাশাপাশি কমিশনও পেতেন তারা। প্রতিদিনই এই ছয় চোর চুরির কাজে বেড়িয়ে পড়তেন।

পুলিশ জানিয়েছে, মঙ্গলবার দলের নায়কসহ ওই সাতজন চোরকে গ্রেপ্তার করা হয়। জওহার সার্কেল, শিবদাসপুরা, খো নগোরিয়ান, সঙ্গানার এবং জয়পুরের অন্যান্য এলাকায় তারা চুরি করতেন। পরপর পুলিশের কাছে অভিযোগ আসার পরই টনক নড়ে।

পুলিশ সিসি ক্যামেরা খতিয়ে দেখার পর নিশ্চিত হয় যে, সব অপরাধী একই গ্যাংয়ের। মঙ্গলবার অভিযুক্তদের প্রতাপনগর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এখানেই ঘাঁটি গেড়ে থাকতেন চোরদের মূলহোতাসহ ৬ চোর।

ওই বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে পুলিশ ৩৩টি মোবাইল, ল্যাপটপ, দু’‌টো সোনার হার এবং চারটি বাইক উদ্ধার করে। চোরাই মাল বিক্রি করে এ চক্রের মূলহোতা আশিষ মিনা অন্য চোরদের বেতন দিতেন।

পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ৬ চোর সবাই অশিক্ষিত এবং বেকার। আশিষ তাদের চুরি করার প্রস্তাব দেন এবং প্রত্যেককে মাসে ১৫ হাজার টাকা বেতন দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন। তার প্রস্তাবে চোরেরা জয়পুরের একটি বাড়িতে চলে আসেন এবং এখান থেকেই গোটা কর্মকাণ্ড পরিচালনা করতেন।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম