logo

বুধবার, ১৫ আগস্ট ২০১৮ | ৩০ শ্রাবণ, ১৪২৫

header-ad

ভ্যালেন্টাইন্স ডে’তে পকেটে ঝরবে প্রেমিকদের রক্ত

ফেমাসনিউজ ডেস্ক | আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

‘ফুল ফুটুক নাই ফুটুক, আজ বসন্ত’— গোলাপকে যে নামেই ডাক মঙ্গলবার থেকে বুধবারের মধ্যে প্রতি পিস গোলাপের দাম চড়তে চলেছে ৫০ টাকায়। অতএব, ভ্যালেন্টাইন্স ডে’তে হৃদয় প্রেমের তীরে বিদ্ধ হোক বা না হোক, গোলাপের দামের কাঁটায় পকেট থেকে রক্ত ঝরবেই।

নয়ের দশকে ‘দিল তো পাগল হ্যায়’ সিনেমার দৌলতে ভ্যালেন্টাইন্স ডে এখন তেরো পার্বণের একটি। এই ভালোবাসার দিনে প্রিয়জনের হাতে রূপোলি রাংতায় মোড়া গোলাপ আর চকোলেট মাস্ট। এবছর গোলাপের জোগান অফুরন্ত থাকলেও, চাহিদা চড়চড় করে বাড়তে থাকায় নগদ কড়ি গুনতে হবে বেশ কিছুটাই। অন্যান্য সময়ের চেয়ে যা প্রায় ৫ গুণ। ভারতের হাওড়ার বাগনান, উলুবেড়িয়া এলাকার হাজার একর জমিতে গোলাপ চাষ হয়েছে। আর সেই গোলাপ রেখে দেওয়া হয়েছে ভ্যালেন্টাইন্স ডে’র জন্য। মঙ্গলবার সকালে ওই গোলাপ ফুল পাঠানো হবে কোলাঘাট ও হাওড়ার জগন্নাথ ঘাটে।

এবছর হলুদ গোলাপের ফলন কম, তাই তার দামও কিছুটা বেশি হবে। আর লাল গোলাপ বা ‘ব্ল্যাক প্রিন্সে’র ফলন অনেক বেশি হলেও তার চাহিদা অনেক বেশি। সে কারণে দাম খুচরো বাজারে কোথায় যাবে, তা কেউই আন্দাজ করতে পারছেন না।

বাগনান এলাকার ফুল চাষি পুলক ধারা বলেন, এবছর বিয়ের মরশুমেও আমরা গোলাপের দাম বেশি পাইনি। পর্যাপ্ত বর্ষা হওয়ায় ফলনও ভালো হয়েছে। গাছ লাগানোর পর ফুল ফুটতে এক বছর সময় লাগে। আমরা এই বিশেষ দিনের জন্য এই গোলাপ রেখে দিই। তাই এবার একটু বেশি দাম হবে। পাইকারি বাজারে প্রতি ১০০ পিস লাল গোলাপের দাম ৮০০ টাকা ও হলুদ গোলাপের দাম ১০০০ টাকা হবে।

ভ্যালেন্টাইন্স ডে’র জন্য প্রতিবছর গোলাপের চাহিদা তুঙ্গে ওঠে। খোলা বাজারে প্রতি পিস গোলাপের দাম গতবছরও ৩০ টাকায় গিয়েছিল। এবার খোলা বাজারে দাম যে আরও বাড়বে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এবছর হাওড়ার বাগনান, দেউলটি, ঘোড়াঘাটা, উলুবেড়িয়ার বৃশ্চিতপুর প্রভৃতি এলাকায় এক হাজারেরও বেশি একর জমিতে গোলাপ চাষ হয়েছে। কলকাতার বাজারের জন্য ৭০ হাজার গোলাপ ও সংলগ্ন জেলাগুলির বাজারে ১০ হাজার গোলাপ মঙ্গলবার রাতের মধ্যেই পৌঁছে যাবে।

গোলাপ চাষিরা জানিয়েছেন, এবছর বিয়ের মরশুমে গোলাপের দাম খুব বেশি যায়নি। প্রতি একশো গোলাপ মাত্র ২০০ টাকা দামে বিক্রি হয়েছে। খুচরো বাজারে দাম বেশি নিলেও চাষিদের পকেটে তা যায়নি। তাই ভ্যালেন্টাইন্স ডে’র জন্য অপেক্ষায় রয়েছেন চাষিরা।

তাদের বক্তব্য, গোলাপ গাছে প্রচুর জলের প্রয়োজন হয়। শুধু বর্ষার ওপর ভরসা করে থাকলে চলে না। তাই সাবমার্সিবল পাম্প বসিয়ে বাগানে জল দিতে হয়। পাম্প কেনা ও বিদ্যুতের বিল বাবদ মোটা টাকা খরচ হয়। বিয়ের মরশুমে কার্যত লোকসানে গোলাপ বিক্রি করতে হয়েছে। আর তাই ভ্যালেন্টাইন্স ডে’র জন্য গোলাপের দাম যে খুচরো বাজারে কোথায় যাবে, তা কেউই বলতে পারছে না। তার কারণ, চাষিরাও বসে আছেন এই দিনটির জন্য।

তাদের আশা, এই গোলাপ বিক্রি করে কিছুটা লাভের মুখ দেখার। চাষিরা বলেন, আমাদের কাছে খুচরো ব্যবসায়ীরা প্রতি পিস ২ টাকায় গোলাপ কিনে তা বিক্রি করেন ১০ টাকায়। কিন্তু, সারাবছর গোলাপ চাষ করে আমাদের লাভ হয় না।

ফেমাসনিউজ২৪/আরএ/আরইউ