logo

বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

অভিশপ্ত ফারাও তুতেনখামেন! কেমন করে হয়েছিল মৃত্যু?

ফিচার ডেস্ক | আপডেট: ০২ আগস্ট ২০১৮

কেবল একটি নাম দশকের পর দশক রোমাঞ্চিত করছে সারা পৃথিবীকে। সে নামটি হলো তুতেনখামেন। কিন্তু সত্যিই কি ১৯২২ সালে ওই মমিটি উদ্ধারের পরে সেই খনন কার্যের সঙ্গে যুক্তদের রহস্যময় মৃত্যুর পেছনে ছিল অভিশাপ?

এ নিয়ে নানা ব্যাখ্যা রয়েছে। লেখা হয়েছে বহু বই। কেবল অভিশাপই নয়, কিশোর রাজা তুতেনখামেনকে নিয়ে প্রত্নতত্ত্ববিদদের আগ্রহেরও শেষ নেই।

১৯৬৮ সালে লিভারপুল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পরে ঘোষণা করেন সম্ভবত তুতেনখামেনের মৃত্যু হয়েছিল মাথায় ভারী কিছুর আঘাতে। কারণ তার মাথায় মিলেছে রক্ত জমাট বাঁধার চিহ্ন। স্বাভাবিকভাবেই উঠে এসেছিল হত্যা তত্ত্ব। বহুদিন পর্যন্ত সেই তত্ত্বই চালু ছিল।

কেউ কেউ অবশ্য এমন বলেন, ‘ঘোড়ার গাড়ি থেকে পড়ে গিয়েই মারা গিয়েছিলেন তুতেনখামেন। গবেষকরা পরে বলেন, হত্যা বা দুর্ঘটনা নয়- গবেষকদের মতে রোগে ভুগেই মারা গিয়েছেন মিশরের কিশোর ফারাও।

২০০৫ সালে জাহি হাওয়াস বলেন, সম্ভবত ম্যালেরিয়ায় ভুগেই মৃত্যু হয়েছিল তুতেনখামেনের। ২০১০ সালে জার্মান গবেষকরা দাবি করেন, তার রক্তে লোহিত রক্তকণিকার অভাব ছিল।

২০১৪ গবেষকরা জানান, যেহেতু প্রাচীন মিশরে ভাই-বোনেদের মধ্যে বিয়ে বৈধ ছিল, হয়তো সে কারণেই বাবা-মা’র কাছ থেকে রক্তের ওই রোগ পেয়েছিলেন তুতেনখামেন। জন্মসূত্রে পাওয়া সেই রোগ থেকেই মৃত্যু হয় তার। কিন্তু ওই বছরেই ফিরে আসে হত্যা তত্ত্বও।

রহস্যের সমাধান এখনো হয়নি। তুতেনখামেনের কবরে আঁকা ছবি থেকে দেখা গিয়েছে, তুতেনখামেনের নেতৃত্বে যুদ্ধ সংঘটিত হওয়ার ছবি। যা দেখে অনেকের দাবি, সিরিয়ার যুদ্ধে মৃত্যু হয়েছিল তুতেনখামেনের।

তুতেনখামেনের মৃত্যু ঘিরে রহস্য আজও অমলিন। যেমন রহস্য রয়েছে তার রানি নেফারতিতির কবর নিয়েও।

ফেমাসনিউজ২৪.কম/আরআই/আরবি