logo

মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯ | ৫ ভাদ্র, ১৪২৬

header-ad

ফুলের রাজ্য

ফিচার ডেস্ক | আপডেট: ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

বাংলাদেশের যশোর জেলার গদখালি এলাকায় গ্রামের পর গ্রাম বাণিজ্যিকভাবে ফুলের চাষ হয়। ফুলের চাহিদার বড় একটা অংশই আসে গদখালি থেকে।

যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালি ইউনিয়ন। যশোর শহর থেকে প্রায় পঁচিশ কিলোমিটার দূরের এ ইউনিয়ন বিখ্যাত হয়েছে ফুল চাষের কারণে। ইউনিয়নের পানিসারা, হাড়িয়া, কৃষ্ণচন্দ্রপুর, পটুয়াপাড়া, সৈয়দপাড়া, মাটিকুমড়া, বাইসা, কাউরা, ফুলিয়া ইত্যাদি গ্রামের প্রতি ইঞ্চি জমি চাষিরা কাজে লাগিয়েছেন ফুল চাষে।

১৯৮২ সালে ছোট্ট একটি নার্সারির মাধ্যমে গদখালিতে ফুলের চাষ শুরু করেন শের আলী সরদার। দেশে বাণিজ্যিকভাবে ফুলচাষের পথিকৃৎ বলা যায় তাকেই। তার সাফল্যে অনুপ্রাণিত হয়েই গদখালি এলাকায় সাড়ে পাঁচ হাজারেরও বেশি চাষি ঝুঁকেছেন ফুল চাষে।

নানান জাতের দেশি-বিদেশি ফুলের চাষ জয় গদখালিতে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হেলো রজনীগন্ধা, গোলাপ, গাঁদা, গ্লাডিওলাস, জারবেরা, রথস্টিক, জিপসি, গ্যালেনডোলা, চন্দ্রমল্লিকা ইত্যাদি।

গদখালিতে যশোর রোডের দুই ধারে খুব ভোরে বসে বিশাল ফুলের বাজার। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ফুলের বাজার এটি। দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে পাইকাররা এখানে আসেন ফুল কিনতে। গদখালিতে উৎপাদিত নানা ধরনের ফুল বিদেশে রপ্তানিও হয়।

সারা বছর ফুল উৎপাদন ও বিক্রি হলেও গদখালির চাষিরা বসন্তবরণ, ভালোবাসা দিবস, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, পহেলা বৈশাখের দিকে তাকিয়ে থাকেন। এ দিনগুলোতেই সবচেয়ে বেশি ফুল বিক্রি ও দামও ভালো পাওয়ার কারণে এ সময়কে লক্ষ্য করে চাষিরা বেশি ফুল উৎপাদন করেন।

ফুল চাষিরা জানান, দেশের সবচেয়ে বেশি ফুলের চাষ গদখালিতে হলেও সেখানে ফুল ও ফুলবীজ সংরক্ষণের জন্য বিশেষায়িত কোনো হিমাগার নেই৷ হঠাৎ কোনো ফুলের ফলন বেশি হয়ে গেলে দাম অনেক কমে যায়৷ এ নিয়ে চাষিদের খুবই সমস্যায় পড়তে হয়৷

বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির তথ্য মতে, গদখালি এলাকার হাজার হাজার একর জমিতে বছরজুড়ে উৎপাদিত নানা জাতের দেশি-বিদেশি ফুলের বার্ষিক বাজারমূল্য প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা৷পর্যটন কেন্দ্র
গদখালি এলাকার ফুলচাষ দেখতে এখন সেখানে পর্যটকরাও যান৷

গদখালি এলাকার সর্বত্রই চোখে পড়ে বিশাল বিশাল পলিশেড। এসব ঘরে চাষ হয় জারবেরা ফুল। কৃষকরা জানান, এখন সবচেয়ে বেশি চাহিদা এ ফুলটির।

জারবেরার পর গোলাপের চাহিদাই সবচেয়ে বেশি। গদখালিতে প্রচুর চাষ হয় গোলাপ ফুলও৷ এখানকার গোলাপ বাগানগুলোও দেখার মতো৷
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম