logo

সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৩ পৌষ, ১৪২৫

header-ad

মুক্তির পরই রাজপ্রাসাদে আনোয়ার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | আপডেট: ১৬ মে ২০১৮

অবশেষে মুক্তি পেলেন মালয়েশিয়ার সাবেক উপপ্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহিম। আজ বুধবার স্থানীয় সময় দুপুর ১২টার দিকে তিনি হাসপাতাল (প্রিজন) থেকে বেরিয়ে আসেন।

মুক্তির পরই হাসপাতালের বাইরে অপেক্ষামান সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলে সোজা রাজপ্রাসাদে চলে যান আনোয়ার।

এর আগে, স্থানীয় সময় বেলা সাড়ে ১১টায় তিনি মুক্তি পান। গতকাল মঙ্গলবার তার মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলেও হঠাৎ তা স্থগিত করা হয়।

মালয়েশিয়ার রাজা ইয়াং ডি-পারতুয়ান আগং আগেই প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে আনোয়ার ইব্রাহিমকে কারা মুক্তির পর সাক্ষাতের জন্য রাজপ্রাসাদে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।

দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রাজপ্রাসাদে রাজা ইয়াং ডি-পারতুয়ান আগং এর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করার কথা আগেই জানিয়েছেন উপপ্রধানমন্ত্রী ও আনোয়ার ইব্রাহিমের স্ত্রী আজিজাহ ওয়ান ইসমাইল।

এর আগে রাজা ইয়াং ডি-পারতুয়ান আগং মঙ্গলবার তাকে সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেন। এ বিষয়ে সরকারের সাধারণ ক্ষমাবিষয়ক বোর্ডের বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সে বৈঠক স্থগিত করা হয় বুধবার সকাল পর্যন্ত।

আজ সকালে বৈঠকে রাজা ঘোষিত সাধারণ ক্ষমা নিয়ে আলোচনার পর আনোয়ার মুক্তি পান। এরপরই জেল থেকে বেরিয়ে আসেন আনোয়ার ইব্রাহিম। তিনি ২০১৫ সাল থেকে জেলে ছিলেন। আনোয়ার ইব্রাহিমের বয়স এখন ৭০ বছর।

রাজপ্রাসাদের কর্মকর্তা আহমাদ দাহলান বলেছেন, ১৬ মে এ বিষয়টি চূড়ান্ত করার বিষয়ে যে অনুরোধ রাখা হয়েছে, তাতে সম্মতি রয়েছে ইয়াং ডি-পারতুয়ান আগংয়ের।

এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী মাহাথিরের সঙ্গে আলোচনা করেন উপপ্রধানমন্ত্রী ও আনোয়ার ইব্রাহিমের স্ত্রী আজিজাহ ওয়ান ইসমাইল।

আনোয়ারের দল পার্টি কেদিলান রাকাইয়াত (পিকেআর) ও তার নিজের আইনজীবী আর সিবারাসা বলেন, পরিবারের পক্ষ থেকে আনোয়ার ইব্রাহিমের মুক্তি দাবি করে আবেদন করা হয়। বলা হয়, তিনি ভুল বিচারের শিকার হয়ে শাস্তি ভোগ করছেন। এ ছাড়া তার বর্তমান স্বাস্থ্যগত অবস্থার কথা তুলে ধরা হয়।

আনোয়ার ইব্রাহিম রাজধানী কুয়ালালামপুরে ছেরাস রিহ্যাবিলিটেশন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তার কাঁধে একটি অপারেশন হয়েছে। আস্তে আস্তে তিনি সুস্থ হযে উঠছেন।

এর আগে আনোয়ার ইব্রাহিমের মেয়ে নুরুল ইজ্জাহকে উদ্ধৃত করে গত শনিবার চ্যানেল নিউজ এশিয়া জানায়, আনোয়ার ইব্রাহিমকে মঙ্গলবারই মুক্তি দেয়া হবে। ওদিকে তিনি মুক্তি পেলেই কি মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী হবেন কিনা এমন গুঞ্জনও আছে।

তবে তার স্ত্রী ও উপপ্রধানমন্ত্রী আজিজা বলেন, তাকে প্রধানমন্ত্রী করার জন্য কোনো তাড়াহুড়ো নেই। তিনি বর্তমান প্রধানমন্ত্রী মাহাথিরের ওপর আস্থাশীল।

এর আগে গত বুধবারের নির্বাচনে মাহাথিরের নেতৃত্বাধীন পাকাতান হারাপান জোট ২২২ আসনের পার্লামেন্টে ১১৩ আসনে বিজয়ী হয়। এর মধ্যে আনোয়ারের পিকেআর পায় ৪৮ আসন।

এখন মাহাথির প্রধানমন্ত্রিত্ব থেকে সরে দাঁড়ালে আনোয়ারই হবেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী- জোট গড়ার আগে এমনই চুক্তি হয়েছে তাদের মধ্যে। কিন্তু এরই মধ্যে বলা হয়, ক্ষমতার প্রথম দুবছর দায়িত্বে থাকবেন মাহাথির।

ফেমাসনিউজ২৪.কম/আরআই/আরবি