logo

বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ | ১ কার্তিক, ১৪২৫

header-ad

পুলিশ হত্যার কারণে পাক-ভারত বৈঠক বাতিল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

পাকিস্তানের সঙ্গে বিদেশমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক বাতিল করে দিয়েছে ভারত। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের বৈঠকের ফাঁকে আগামী সপ্তাহে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশির সঙ্গে আলোচনায় বসার কথা ছিল ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের।

শুক্রবার জম্মু ও কাশ্মীরে তিনজন পুলিশকর্মীর নারকীয় হত্যাকাণ্ড এবং নিহত সন্ত্রাসবাদী বুরহান ওয়ানি–র সমর্থনে পাকিস্তানে ডাকটিকিট বের করাকে মোটেও ভাল চোখে দেখছে না ভারত। তার প্রতিবাদেই এই বৈঠক বাতিল করা হল।

সোপিয়ানের ঘটনার পর ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আলোচনা আর সন্ত্রাস একই সঙ্গে চলতে পারে না। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রবীশ কুমার বলেছেন, ক্ষমতায় আসার কয়েক মাসের মধ্যেই ইমরান খানের মুখোশটা সরে গিয়ে মুখটা বেরিয়ে এল।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর ইমরান খান ওই বৈঠকের প্রস্তাব দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। ভারত তাতে রাজি হয়। তবে এও জানায়, ওই বৈঠকের অর্থ এই নয় যে, দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে আবার আলাপ-আলোচনা শুরু হল।

এর আগে মঙ্গলবারই একটি ভিডিও বার্তায় পুলিশ ও নিরাপত্তা কর্মীদের চাকরি থেকে ইস্তফা দেওয়ার দাবি জানায় পাক সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিন। পদত্যাগ না করলে হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়। এর পরই এই ঘটনা।

তাই প্রাথমিক তদন্তে ভারতের পুলিশের অনুমান, অপহরণের নেপথ্যে রয়েছে হিজবুল মুজাহিদিন। স্বরাষ্ট্র দফতরের এক কর্মকর্তা বলেন, উপত্যকায় জঙ্গিরা কোণঠাসা। পাথর বৃষ্টি বা অন্য কোনও বিশৃঙ্খলায় কাশ্মীরবাসী আর তাদের সাহায্য করছেন না। তাই এখন অন্য পথে চাপ সৃষ্টির চেষ্টা চলছে।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা