logo

বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

মায়ের সঙ্গে মেয়ে, প্রেমিকার সঙ্গে বাবা, মন্ত্রীকন্যার এ কি হাল!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮

শোভন-রত্না ডিভোর্স এ মুহূর্তে রাজ্যের রীতিমতো হাই প্রোফাইল মামলা। এদিন শুনানিতে বান্ধবী বৈশাখীকে নিয়েই হাজির হন সাবেক মন্ত্রী শোভন। অন্যদিকে রত্না চট্টোপাধ্যায় নিয়ে আসেন ছেলে ও মেয়েকে। অনেকদিন পরে বাবার সঙ্গে দেখা হল সুহানির।

কলকাতার প্রাক্তন মেয়র, রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মেয়ে সুহানি। কিন্তু দেখা হওয়াটা খুব আনন্দের হল না। আসলে আদালতে বাবা-মায়ের বিচ্ছেদ মামলার মধ্যে নিজেকে সামলাতে পারলেন না ক্লাস নাইনের সুহানি।

ভারতের আলিপুর আদালতে বিচারপতির কাছে রত্না জানান, ছেলেমেয়ে বাবাকে না পেয়ে কষ্ট পাচ্ছে। মনস্তাত্বিক সমস্যা হচ্ছে মেয়ের। বাবার সঙ্গে কথা বলতে চায়। এর পরে সুহানি বাবার সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে শুরুতেই জড়িয়ে ধরে কেঁদে ফেলেন।

বারবার বাবাকে বাড়ি ফিরে যেতে বলেন। তবে শোভন মেয়ের কান্না দেখেও নরম হননি। তিনি নাকি মেয়েকে বলেন, তোমার মা ডিভোর্স দিয়ে ওই বাড়ি ছেড়ে না গেলে তিনি ফিরবেন না।

ছেলেমেয়েকে আদালতে নিয়ে এসে রত্না বিষয়টিকে ‘সেন্টিমেন্টাল’ করতে চাইছেন বলেও শোভন ঘনিষ্ঠদের কাছে মন্তব্য করেন। এমন কী স্কুল কামাই করে মেয়ে কেন আদালতে সেই প্রশ্নও তোলেন তিনি। মেয়ের কাছে মায়ের অবৈধ সম্পর্ক নিয়েও প্রশ্ন করেন।

সব শেষে মেয়ের কান্নাতেও না গলে শোভন নাকি এমনটাও বলেন যে, তাদের মা ‘নোংরামি’ বন্ধ না করলে তার পক্ষে বেহালার বাড়িতে ফিরে যাওয়া আদৌ সম্ভব নয়।

সন্তানদের নিয়ে এদিন বাবা, মা দু’জনেই সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ খোলেন। শোভন বলেন, সন্তানদের ভালো চাই, চাই মানুষের মতো মানুষ হোক। কিন্তু ওদের বিভ্রান্ত করা হচ্ছে।

অন্যদিকে রত্নার দাবি, আমার সঙ্গে সম্পর্ক না রাখলেও চলবে। উনি যেন সন্তানদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম