logo

মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯ | ৫ ভাদ্র, ১৪২৬

header-ad

খেতে দেয় না ছেলে, গঙ্গায় ঝাঁপ মা-বাবার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | আপডেট: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ছেলে খেতে না দেয়ায় লঞ্চ থেকে গঙ্গায় ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন প্রবীণ দম্পতি। সহযাত্রীরা তাদের উদ্ধার করে নিয়ে যান হাওড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে। মারা গেছেন স্বামী, স্ত্রীর চিকিৎসা চলছে। ওই দম্পতির একমাত্র ছেলেকে খবর পাঠিয়েছে পুলিশ।

ভারতের উত্তর ২৪ পরগনার দত্তপুকুরের হাটখোলায় থাকেন তাপস কুমার দত্ত ও তার স্ত্রী শুক্লা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, শুক্রবার সকালে বাগবাজার থেকে হাওড়াগামী লঞ্চে ওঠেন স্বামী ও স্ত্রী। লঞ্চ যখন উত্তর কলকাতার আহিরীটোলা ঘাটের কাছে পৌঁছে, তখন আচমকাই গঙ্গায় ঝাঁপ দেন তারা।

ঘটনার আকস্মিকতায় হতবাক হয়ে যান লঞ্চের অন্য যাত্রীরা। এ অবস্থায় তাপসবাবু ও তার স্ত্রীকে উদ্ধার করেন সহযাত্রীরা। তড়িঘড়ি তাদের নিয়ে যাওয়া হয় হাওড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে। কিন্তু তাপস কুমার দত্তকে বাঁচানো যায়নি। হাসপাতালে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। তার স্ত্রী শুক্লাদেবীর চিকিৎসা চলছে হাওড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে।

কিন্তু কেন এমন কাণ্ড ঘটালেন তাপস কুমার দত্ত ও তার স্ত্রী শুক্লা দত্ত? জানা গেছে, হাসপাতালে পৌঁছনোর পর প্রথমে শুক্লাদেবী জানিয়েছিলেন, ছেলের সংসারে রীতিমতো অবহেলায় দিন কাটে তার ও স্বামীর। ছেলে তাদের ঠিকমতো খেতে পর্যন্ত দেয়নি।

'তাই অভিমানে আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন ওই প্রবীণ দম্পতি। কিন্তু স্বামীর মৃত্যুর পরই ওই বৃদ্ধা নিজের বয়ান বদলে ফেলেন বলে খবর। তখন মানসিক অবসাদের কথা জানান তিনি।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম