logo

রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭ | ৩ পৌষ, ১৪২৪

header-ad

পটিয়ায় প্রার্থী পরিবর্তন চায় আওয়ামী লীগ

এএইচএম কাউছার, চট্টগ্রাম | আপডেট: ২৬ অক্টোবর ২০১৭

চট্টগ্রাম-১২ আসন পটিয়ায় প্রার্থী পরিবর্তন চাই তৃণমূল আওয়ামী লীগ। পটিয়া উপজেলা ১৭ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ কোন্দল চরম আকার ধারণ করেছে। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, অসাংগঠনিক, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি, অনিয়ম ও দলীয় কোন্দলের কারণে পটিয়া উপজেলা পর্যায়ে নেতাকর্মীদের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন বর্তমান সাংসদ সামশুল হক চৌধুরী। ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন না করায় তৃণমূলের ভিতরে আগুন জ্বলছে। বর্তমান সাংসদের বিরুদ্ধে কেউ কেউ প্রকাশ্যে অবস্থান নিয়েছে। আবার মামলা হামলার ভয়ে কেউ কেউ নীরবে কাঁদছে। তাই দলের বেশির ভাগ নেতাকর্মী কাজে আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন। ঝিমিয়ে পড়েছে সাংগঠনিক কার্যক্রম। এ অবস্থায় তৃণমূল নেতাকর্মীদের সংগঠিত করতে হলে এবং সামনের নির্বাচনে জয় পেতে হলে নতুন প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়ার প্রয়োজন বলে তৃণমূলের নেতাকর্মীরা মনে করছেন।

নেতাকর্মীরা বলেন, পটিয়ায় উন্নয়ন হলেও নেতাকর্মীরা নিপীড়িত নির্যাতিত। নেতাকর্মীদের বিভক্ত করে রেখেছে। তিনি (সামশুল হক চৌধুরী) দলের ত্যাগী নেতাকর্মীদের বাদ দিয়ে অসাংগঠনিক ভাবে আগামী ১১ নভেম্বর সম্মেলন করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা যায়। সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে নিজের আত্মীয় স্বজন দিয়ে কাজ করাচ্ছে। কোন নেতাকর্মীকে কাজ দেয়নি বলে অভিযোগ করেন পটিয়ার একাধিক নেতাকর্মী।

পটিয়া উপজেলা মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা মনে করেন, আগামী একাদশ নির্বাচনে বর্তমান সংসদকে পরিবর্তন করে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হিসেবে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও বিজিএমইএর সহ-সভাপতি মোহাম্মদ নাছির অথবা আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বদিউল আলম ও দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চেমন আরা বেগম, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সেলিম নবী এ চার জনের মধ্যে যে কোন একজনকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মনোনয়ন করলে আগামী একাদশ নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে।

পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রাসেদ মনোয়ার বলেন, বর্তমান সাংসদ অসাংগঠনিক এবং গঠনতন্ত্র বিরোধী কাজ করছেন। আওয়ামী লীগকে বিভাজন করে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র করছেন। তৃণমূল নেতাকর্মীর সাথে সাংসদদের কোন যোগাযোগ নেই, তাই আগামী নির্বাচনে নতুন প্রার্থী মনোনয়ন দিলে আওয়ামী লীগ আবার জয়লাভ করবে।

পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নাছির উদ্দিন বলেন, পটিয়া আসনটিতে পর পর দুই বার জয় লাভ করে আওয়ামী লীগ। হেডটিক করতে হলে বর্তমান সাংসদকে বাদ দিয়ে নতুন প্রার্থী দিতে হবে। তাহলে আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ আবার বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে। তিনি আরো বলেন, বর্তমার সাংসদের সাথে তৃনমূলের নেতাকর্মীদের সাথে কোন যোগাযোগ নেই।

সাম্ভব্য প্রার্থী হিসাবে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও বিজিএমইএর সহ-সভাপতি মোহাম্মদ নাছির নিজের গ্রহণযোগ্যতা বাড়াতে তৃণমূল নেতাকর্মীদের সাথে সাংগঠনিক বিষয় নিয়ে প্রতিদিন খোঁজখবর নিচ্ছেন বলে দলীয় সূত্রে জানা যায়। তারা জানান, প্রতি সপ্তাহে পটিয়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে গিয়ে ত্যাগী নেতাকর্মীদের সমস্যা সমাধান করছেন। বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে সাধারণ মানুষের সমস্যা কথা শুনছেন। আগামী জাতীয় নির্বাচনে বর্তমান সাংসদকে পরিবর্তন করে বিকল্প প্রার্থী হিসেবে দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক মোহাম্মদ নাছির ভাইকে মনোনয়ন দিলে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে বলে তৃণমূল নেতাকর্মীরা মনে করেন।

ফেমাসনিউজ২৪.কম/এস/এস