logo

মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

মিরসরাইয়ে এক রাতে ৩ বাড়িতে ডাকাতি

মিরসরাই (চট্টগ্রাম)প্রতিনিধি | আপডেট: ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

মিরসরাইয়ে এক রাতেই ৩ বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার রাতে ১৫ নম্বর ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের গাছবাড়িয়া গ্রামের নাছির মাষ্টার বাড়ি ও ১২ নম্বর খইয়াছড়া ইউনিয়নের মসজিদিয়া গ্রামের তোয়ানি ভবন, সবুজ ভবন এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ডাকাত দল পরিবারের সদস্যদের বেঁধে রেখে নগদ টাকাসহ প্রায় আড়াই লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের নাছির মাষ্টার জানান, রাত পৌনে ৩ টার দিকে ৫-৬ জনের একটি ডাকাতদল তার ঘরের দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে পরিবারের সব সদস্যকে বেঁধে রাখে। পরে আলমারি ভেঙ্গে নগদ ৬ হাজার টাকা, ৫ টি মোবাইল ফোন, দুই ভরি স্বর্ণালংকাসহ মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

মসজিদিয়া গ্রামের সবুজ ভবনের নুর হোসেন জানান, মঙ্গলবার রাত ৩ টার দিয়ে ঘরের লোহার গেইটের তালা ভেঙ্গে মুখোশ পড়া ৬ জন ডাকাত ঘরে ঢুকে তাকে এবং গৃহবধু রাজিয়া আক্তারকে মারধর করে এবং অন্য সদস্যদের বেঁধে রাখে। পরে তারা আলমারি ভেঙ্গে নগদ ৫০ হাজার টাকা, দুই ভরি স্বর্ণালংকার, তিনটি মোবাইল ফোন নিয়ে যায়।

তোয়ানি ভবনের রনজিত দাশ জানান, মঙ্গলবার রাত ২ টার দিকে বাড়ির গেইটের তালা ও ঘরের গেইটের তালা ভেঙ্গে ফেলে। ডাকাতদলের তালা ভাঙ্গার শব্দ পেয়ে ঘর থেকে মোবাইল ফোনে পুলিশ ও এলাকার কয়েকজনের সহযোগিতা চাইলে তারা আসায় ডাকাতদল পালিয়ে যায়। ডাকাতির খবর পেয়ে বুধবার সকালে নিজামপুর তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ কামাল হোসেন, চেয়ারম্যান ফজলুল কবির ফিরোজ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

মিরসরাই থানার অফিসার ইনচার্জ সাইরুল কবির জানান, একটি বাড়িতে ডাকাতদল হানা দেয়ার খবর পেয়ে দ্রুত সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। ওই বাড়ির তালা ভাঙ্গলেও পুলিশ যাওয়ায় কোন মালামাল নিয়ে যেতে পারেনি। আরো দুই বাড়ি ডাকাতির কথা শুনলেও থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। তবে এধরণের অপরাধের সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ফেমাসনিউজ২৪/এসআর