logo

মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ | ১ কার্তিক, ১৪২৫

header-ad

বাগেরহাটে অন্যায়ভাবে ৩ শিক্ষককে বরখাস্ত

এস.এম. সাইফুল ইসলাম কবির, বাগেরহাট অফিস | আপডেট: ১৩ জুন ২০১৮

বাগেরহাটে পছন্দের শিক্ষককে প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দিতে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকসহ তিন শিক্ষককে নিয়ম বহির্ভূত বরখাস্ত করার অভিযোগ উঠেছে।

বরখাস্তকৃত শিক্ষকরা হলেন, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শেখ শামীম হাসান, সহকারী শিক্ষক (শরীরচর্চা) শেখ মো. আবদুল ওয়াহাব ও সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) মোসা. কামরুন্নাহার।

বাগেরহাট সদর উপজেলার সুন্দরঘোনা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি কাজী মতিনুর রহমান ২৪ ঘন্টার নোটিশে বরখাস্ত করে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে ব্যাংক থেকে ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা তুলে নেয়ার অভিযোগ করেছেন শিক্ষকরা।

আজ বুধবার সভাপতির এসব অনিয়ম, দুর্নীতি ও সেচ্ছাচারিতা বন্ধে জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করেছেন বিদ্যালয়ের বরখাস্ত হওয়া ওই তিন শিক্ষক।

তারা অভিযোগ করেন, শিক্ষক ও অভিভাবকদের সালাম ও সম্মান প্রদর্শন না করা, রমজানে অতিরিক্ত ক্লাস না নেয়াসহ কয়েকটি অভিযোগ এনে আমাদের বিরুদ্ধে ৪ জুন কারণ দর্শানো নোটিশ করেন সভাপতি। ডাকযোগে পাঠানো ঐ নোটিশ আমরা ১০ জুন হাতে পাই। পরের দিন নোটিশের জবাব দেই। অথচ ঐদিনই আমাদের নামে বরখাস্তের আদেশ দেন। একইসঙ্গে সহকারি শিক্ষক মো. শহিদুল্লাহ সরদারকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা তুলে নেন সভাপতি কাজী মতিনুর রহমান।

তারা অভিযোগ করে বলেন, সভাপতির অনিয়ম, দুর্নীতি ও নিয়ম বহির্ভূত পছন্দের শিক্ষক নিয়োগের বিরুদ্ধে কথা বলায় তাদের বিরুদ্ধে এ ধরণের শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। যা বিধি বহির্ভূত ও অমানবিক।

বাগেরহাট জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান বলেন, ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এটা অস্বাভাবিক। এক সাথে ৩ জন শিক্ষককে বরখাস্ত করা বিধি বহির্ভূত।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি কাজী মতিনুর রহমানকে ফোন করা হলে সরাসরি কথা বলবেন বলে এড়িয়ে যান। তবে দ্বিতীয়বার ফোন করা হলে তিনি কোন কথা বলতেই রাজি হননি।

ফেমাসনিউজ২৪.কম/জেডআর/এফআর