logo

শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৬ আশ্বিন, ১৪২৫

header-ad

পরকিয়ায় বাধা, গ্রাম পুলিশকে মারধর

অ আ আবীর আকাশ,লক্ষ্মীপুর | আপডেট: ১২ আগস্ট ২০১৮

 

লক্ষ্মীপুর জেলার কমলনগর উপজেলার তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের গ্রাম পুলিশ মনির হোসেনকে একই এলাকার জাবের বাপের বাড়ীর মন্তাজের রহমানের ছেলে বেলাল হোসেন (৩২), হেলাল হোসেন(২৮) ও আবদুল মালেকের ছেলে রুবেল হোসেন বেদম মারধর করে স্থানীয় এরশাদ গাঁ মসজিদের সামনে ফেলে যায়।

জানা যায়, বেলাল ও একই এলাকার মোল্লা বাড়ীর মিলন একসাথে প্রবাসে থাকে। বেলাল ছুটিতে বাড়ীতে আসার সময় মিলনের কিছু মালপত্র আনে। সে সুবাদে মিলনের স্ত্রী দুই সন্তানের জননীর সাথে সম্পর্ক তৈরী হয়। ঘটনা জানাজানি হলে এনিয়ে মিলনের বাবা শাহজাহান মোল্লা বেলাল ও তার বাবা মন্তাজ মিয়াকে সতর্ক করে। তবুও বেলাল ও মুন্নী বেগম তাদের অবৈধ সম্পর্ক চালিয়ে যেতে থাকে।

তারপর ঘটনার দিন শনিবার দিবাগত রাতে বেলাল ও মুন্নী বেগম গোপন অভিসারে মিলিত হয়। এ সময় মিলনের বাবা টের পেয়ে ছোট ভাই মনির হোসেনসহ তাকে হাতেনাতে ধরে স্থানীয় ইউপি সদস্য সিরাজ মেম্বারকে জানিয়ে গ্রাম পুলিশ মনিরের কাছে সোপর্দ করে। মনির বেলালকে পরিষদে নিয়ে যাওয়ার সময় পথে বেলালের ভাই হেলাল ও রুবেল পাকড়াও করে ধরে মনির হোসেনকে বেদড়ক মারপিট করে বেলালকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

স্থানীয়রা বেলালকে উদ্ধার করে কমলনগর উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। ইউপি চেয়ারম্যান ফয়সাল আহমেদ রতন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আমার গ্রাম পুলিশ অসুস্থ, চিকিৎসা চলছে। সুস্থ হলে স্থানীয়ভাবে সমাধান করা হবে।

ফেমাসনিউজ২৪.কম/কেআর/এস