logo

সোমবার, ২১ জানুয়ারি ২০১৯ | ৮ মাঘ, ১৪২৫

header-ad

চাকরির কথা বলে ঢাকায় এনে অপহরণ

ফেমাসনিউজ ডেস্ক | আপডেট: ১১ জানুয়ারি ২০১৯

রাজধানীর তেজকুনিপাড়া থেকে অপহৃত তরুণ জুয়েল আহম্মেদকে (২২) উদ্ধার করেছে র‌্যাব-২। এ সময় অপহরণকারী চক্রের এক সদস্যকে আটক করা হয়। চাকরির কথা বলে নাটোর থেকে ঢাকায় ডেকে এনে জুয়েলকে অপহরণ করা হয়েছিল।

বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপিতে র‌্যাব জানায়, মঙ্গলবার রাতে কুরবান আলীকে আটক করা হয়। তার দেয়া তথ্যমতে, তেজকুনিপাড়ার রুপালি বিল্ডার্স ২১৯ সি-এর ১২/৪ নম্বর বাসার দ্বিতীয় তলা থেকে জুয়েলকে উদ্ধার করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকায় স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপে চাকরি করতেন নাটোরের জুয়েল আহম্মেদ। চাকরির সুবাদে আবু মুসা ওরফে প্রিন্স আল মুসা এবং কুরবান আলীর সঙ্গে তার বন্ধুত্ব হয়। এক পর্যায়ে জুয়েল চাকরি ছেড়ে বাড়ি চলে যান। কিছুদিন পর জুয়েলকে ঢাকায় কাস্টমসে চাকরি দেয়ার প্রতিশ্র“তি দেয় বন্ধু মুসা। প্রতারণার ফাঁদ হিসেবে জুয়েলকে একটি ভুয়া নিয়োগপত্রও পাঠানো হয়।

চাকরিতে যোগদানের জন্য জুয়েল ঢাকার তেজকুনিপাড়া এলে মুসা ও কুরবান মিলে সেখানকার একটি বাসায় তাকে (জুয়েল) আটকে রাখে। এরপর ৪ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে তারা। মুক্তিপণের টাকা দেয়ার ফাঁদে ফেলে মঙ্গলবার রাতে কুরবান আলীকে আটক করে র‌্যাব।

তার দেয়া তথ্যমতে ভিকটিম জুয়েলকে উদ্ধার করা হয়। আটক কুরবানকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-২ জানায়, চাকরির কথা বলে জুয়েলকে কুরবান আলী নিজের বাসায় নিয়ে আটকে রাখে। এরপর তার ওপর চলে নির্যাতন। অপহরণকারীরা জুয়েলের পরিবারের কাছে ৪ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে বলে, টাকা না দিলে জুয়েলকে মেরে ফেলা হবে। বিষয়টি জুয়েলের পরিবার র‌্যাবকে জানায়। র‌্যাব-২ এর এএসপি মোহাম্মদ সাইফুল মালিক বলেন, কুরবান আলী ও তার বন্ধু মুসা মিলে অপহরণের ঘটনা ঘটিয়েছে। পলাতক মুসাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ফেমাসনিউজ২৪/এসএ/কেআর