logo

শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

আপেল খান, সুস্থ থাকুন

লাইফস্টাইল ডেস্ক | আপডেট: ০৫ এপ্রিল ২০১৮

গুণে ভরপুর আপেল। রয়েছে নানা ভিটামিনও। একটি জরিপ করা হয়েছিল যে, কোন খাদ্যে কতটা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে, এর মধ্যে রয়েছে আপেল। লাল এবং সবুজ আপেল যথাক্রমে ১২ এবং ১৩তম স্থানে রয়েছে।

আজ আপেলের গুণাগুণ সম্পর্কে যেনে নেয়া যাক-

ক্যান্সার দূর করে

আপেল খেলে অগ্ন্যাশয়ে ক্যান্সারের আশঙ্কা প্রায় ২৩ শতাংশ হারে কমে। কারণ আপেলের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ফ্ল্যাভোনল থাকে। এছাড়াও কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা আপেলের মধ্যে এমন কিছু উপাদানের সন্ধান পেয়েছেন, যা ট্রিটারপেনয়েডস নামে পরিচিত। এই উপাদানটি লিভার, স্তন এবং কোলোনের মধ্যে ক্যান্সারের কোষ বেড়ে উঠতে বাঁধা দেয়। ন্যাশানাল ক্যান্সার ইন্সটিটিউট ইন দ্য ইউএসের গবেষণা থেকে জানা যায় যে, আপেলের মধ্যে যে পরিমাণে ফাইবার থাকে, তা মলাশয়ের ক্যান্সার রোধে সাহায্য করে।

ডায়াবেটিসের সমস্যা কমায়

যেসব মেয়ে প্রতিদিন আপেল খান, তাদের ডায়াবেটিস হওয়ার আশঙ্কা ২৮ ভাগ কমে যায়। কারণ আপেলের মধ্যে যে ফাইবার থাকে, তা রক্তে শর্করার পরিমাণ সঠিক রাখতে সাহায্য করে।

কোলেস্টেরল কমায়

আপেলের মধ্যে যে ফাইবার থাকে, তা অন্ত্রের ফ্যাট কমাতে সাহায্য করে। ফলে কোলেস্টেরলের মাত্রা সঠিক থাকে। আর একবার শরীরে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমতে শুরু করলে হার্টের কোনো ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা কমে।

হার্ট ভালো রাখে

আপেলের মধ্যে যে ফাইবার থাকে, তা কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে। এ ছাড়াও আপেলের খোসার মধ্যে যে ফেনলিক উপাদান থাকে, তা রক্তনালিকার থেকে কোলেস্টেরল দূর করতে সাহায্য করে। এর ফলে হার্টে রক্তচলাচলা স্বাভাবিক থাকতে। ফলে হৃদযন্ত্রের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা কমে।

ডায়রিয়া এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে

কোনো কিছু খেলেই বাথরুমে দৌড়াতে হয়? আবার এমনও কি হয়, যখন বাথরুমে গেলেন তখন দীর্ঘক্ষণ বসে থাকতে হয়? অথচ কিছুতেই পেট পরিষ্কার হয় না। তাহলে এই দুই সমস্যারই একটাই ওষুধ। তা হলো আপেল, যা প্রয়োজন অনুযায়ী বর্জ্য থেকে অতিরিক্ত জল টেনে রাখতে পারে। ফলে একদিকে যেমন অতিরিক্ত বাথরুমে যেতে হয় না, তেমনই হজমশক্তি বৃদ্ধি করে। দূর করে সেই সঙ্গে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যাও।

ফেমাসনিউজ২৪.কম/আরআই/আরবি