logo

শুক্রবার, ২০ জুলাই ২০১৮ | ৫ শ্রাবণ, ১৪২৫

header-ad

ছুটি আদায়ের কিছু কৌশলগত অ্যাপ্রোচ

লাইফস্টাইল ডেস্ক | আপডেট: ০৫ এপ্রিল ২০১৮

কর্মকাতর মন ছুটি চাইবে, কারণে-অকারণে চাইব এটাইতো স্বাভাবিক প্রবৃত্তি। কিন্তু বস কি আর কথা শোনে? তবে শুনুক বা শুনতে নারাজি প্রকাশ করুক, ছুটি তো আদায় করতেই হবে। আর এজন্য চাই সম্মোহনী আবেদন শক্তি। অর্থাৎ ছুটি চাইবার আগে এমন কোনো আচরণ বা কাজ দেখাতে হবে যা বসের হৃদয় জুড়িয়ে দেয়। এছাড়া আবেদনের ভঙ্গিটি হতে হবে স্নিগ্ধ, যৌক্তিক ও শ্রুতিমধুর।

অফিসে কাজের চাপ হাজার কম থাক, কোনো বস সাধারণত ছুটি দিতে চায় না। বসদের মন প্রভুত্বপরায়ণ। কিন্তু তাদের এই মনোভাবকেই কাজে লাগানো যেতে পারে। বেশি কিছু না, যা করতে হবে তা হলো একটু প্রজাসুলভ আচরণ। বসেরা নিজেদের দায়িত্বশীল রাজা ভাবেন অবচেতনে। আর এই সুযোগটাকে কাজে লাগানো যেতে পারে।

তাছাড়া নির্দিষ্ট বসের মনস্তত্ত্ব বোঝা সবথেকে বুদ্ধিমানের কাজ। 'আমার বস কোন কথায় বেশি প্রীত হন' তা জেনে রাখা অধীনস্তদের কৌশলগত দায়িত্ব।

তাই বলে যৌনতাকে কাজে লাগানো কোনো সভ্য কাজ নয়। বিশেষত নারী চাকুরিজীবীদের জন্য এ পরামর্শটি খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ। যৌনতার আশ্রয়ে কিছু একটা হাসিল করা যতই প্রকৃতিগত হোক না কেন, কোনো সুশীল-সামাজিক প্রতিষ্ঠানে কেউ যৌনাচারের শর্তে কাজ করে না, করে নিজের মেধা ও যোগ্যতা আছে জন্য।

ওদিকে অভিজ্ঞদের মতে আর একটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলো, প্রতিষ্ঠান দেখে চাকরি না করে, বস দেখে চাকরি করা। বস্তুত, সম্ভব হলে এটাই সবথেকে বুদ্ধিমানের কাজ।

ফেমাসনিউজ২৪/এসএ/এস