logo

মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৮ | ৮ কার্তিক, ১৪২৫

header-ad

আনিসুলের প্রেমে পড়েছিলেন তসলিমা

ফেমাসনিউজ ডেস্ক | আপডেট: ০১ ডিসেম্বর ২০১৭

লন্ডনে চিকিৎসাধীন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হক মারা গেছেন। বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার রাতে লন্ডনের ওয়েলিংটন হাসপাতালের চিকিৎসকরা তার কৃত্রিম শ্বাস-প্রশ্বাসযন্ত্র (ভেনটিলেশন যন্ত্র) খুলে নেন। এরপর রাত ১০টা ২৩ মিনিটে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। মৃত্যুর সময় তার স্ত্রী রুবানা হক ও সন্তানরা তার পাশে ছিলেন। এর আগে সন্ধ্যায় রুবানা হক জানিয়েছিলেন, তার স্বামীর অবস্থার অবনতি ঘটেছে।

এদিকে আনিসুল হকের মৃত্যুর পর সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুক হয়ে গেছে আনিসুলময়। সবাই তার মৃত্যু সংবাদ নানা ফটোগ্রাফ যুক্ত করে প্রচার করছেন। এ ফটোগ্রাফে থাকছেন প্রচারকারী নিজেও। অবশ্য এ ফেসবুকেই একাধিকবার তার মৃত্যুর ভুয়া খবর প্রচার করা হয়। এ নিয়ে অসন্তোষও প্রকাশ করেন অনেকে। অন্যদিকে কিছু গণমাধ্যমও নানা সময় তার মৃত্যুর গুজব প্রচার করে। এ নিয়েও আছে অসন্তোষ। 

এ সবের ভিড়েই গুগলের কল্যাণে দেখা যায়- বিতর্কিত লেখক তসলিমা নাসরিন আনিসুল হকের প্রেমে পড়েছিলেন। কোনো এক সময় নিজ ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে এ কথা জানিয়েছেনও এ লেখিকা। তখন আনিসুল মেয়র প্রার্থী। অবশ্য ব্যবসায়ী নেতা হয়ে উঠেছেন তিনি।  

ওই সময়ে তসলিমা নাসরিনের স্ট্যাটাসটি চিল এমন-

‘ফেসবুকে দেখছি আনিসুল হক নাকি ঢাকায় নির্বাচন করছেন। এই সেই আনিসুল হক! এখনো চেহারাটা আগের মতোই। যৌবনে কী যে অবশ করে দেওয়া সুদর্শন ছিলেন! টেলিভিশনে রাতের দিকে কী একটা অনুষ্ঠান করতেন। ওঁর চোখ, ওঁর হাসি, ওঁর কণ্ঠস্বর আমাকে সত্যি সত্যি পাগল করত। প্রতি রাতে ওঁর প্রেমে পড়তাম। আমার প্রেম দেখে আমার ছোট বোনও ওঁর প্রেমে পড়ে বসলো। প্রেম জিনিসটা সত্যিই সংক্রামক।

আনিসুল হককে নিয়ে আমার আর বোনের মধ্যে কী বিশাল যুদ্ধ বেঁধে গেল। আমাদের মুখ দেখাদেখি প্রায় বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। সম্ভবত আমি একটা প্রেমের চিঠি আনিসুল হককে পাঠাব বলে ঠিকই করে ফেলেছিলাম। আর ওদিকে বোনটিও আমার অগোচরে ওঁকে একটা চিঠি পাঠিয়ে দিল। কিছুদিন পর আনিসুল হকের প্রেম-প্রেম একটা চিঠি এলো বোনের কাছে। চিঠিটা আমার হাতেই পড়েছিল। আমার কি আর প্রাণে সয়!

পুরনো সেসব দিনের কথা মনে পড়ছে আর আমার ঠোঁটের কোণে প্রজাপতির মতো উড়ে উড়ে হাসি এসে বসছে। আমার বোনটা যখন এই লেখাটা পড়বে, খুব জোরে হাসবে নাকি আমার মতো নিশব্দে!

কৈশোর যখন যায়, একেবারেই কি যায়?’

ফেমাসনিউজ২৪/আরঅ্যা/আরইউ