logo

রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৫ আশ্বিন, ১৪২৭

header-ad

দেখুন স্ত্রীকে রাস্তায় কীভাবে পেটাচ্ছে (ভিডিও)

বিবিধ ডেস্ক | আপডেট: ১৭ জানুয়ারি ২০১৯

স্বামী-স্ত্রীর মধ্য ঝগড়া-বিবাদ হতে পারে। কিন্তু প্রকাশ্য রাস্তায় এভাবে পেটানো লজ্জাস্কর। স্ত্রীকে ঘর থেকে টেনে রেব করে বেধড়ক মারধরের এমন একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, নিজের স্ত্রীকে এলোপাথাড়ি কিল-ঘুষি মারছে একটি লোক। সেই সাথে সমানতালে গালিগালাজ। মারধরের একপর্যায়ে বর্বরতার দৃশ্য সহ্য করতে না পেরে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসেন।

এ ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বুনিয়াদপুরে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পরই অবশ্য নড়েচড়ে বসেছে পুলিশ প্রশাসন। তবে অভিযুক্ত স্বামীকে এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, ৫৫ বছরের জীবন হালদার পেশায় মাছ ব্যবসায়ী। কয়েক দিন আগে তার চতুর্থ স্ত্রীকে এভাবেই মারধর করেন তিনি। তবে প্রতিবেশিরা বলছেন, এ ঘটনা একেবারেই নতুন বা বিচ্ছিন্ন কোনও বিষয় নয়। এর আগের তিন স্ত্রীর মধ্যে প্রথম স্ত্রী মারা গেছে অনেক আগেই।

অভিযোগ, মারধরের ভয়ে পালিয়ে গেছেন দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্ত্রী। বছর দুয়েক আগে বুনিয়াদপুরেরই বাসিন্দা পম্পা হাজরাকে ফের বিয়ে করেন জীবন।

'পম্পাকেও প্রায়ই মারধর করতেন জীবন। গত শনিবার দুপুরে রান্নায় নুন কম হওয়া নিয়ে ফের বচসা শুরু হয় তাদের। এর পরই তাকে মারধর করতে শুরু করেন জীবন। প্রকাশ্য রাস্তায় ফেলে মারধর করা হয় তাকে। স্থানীয়দের নজরে এলে, রক্ষা পান পম্পা।

ঘটনাটির ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেন কয়েকজন ব্যক্তি। সঙ্গে সঙ্গে তা ভাইরাল হয়ে যায়। অভিযুক্ত জীবনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি ওঠেছে।

এমন ঘটনা মাস দেড়েক আগেও ঘটেছিল পম্পার সঙ্গে। তার হাত বেঁধে বাড়ির মধ্যেই বেধড়ক মারধর করেছিল জীবন। খবর পাওয়ার পর গতকাল গভীর রাতে পুলিশ ও বুনিয়াদপুর পৌরসভার কাউন্সিলাররা ঘটনাস্থলে যান।

কিন্তু আগেভাগেই গা-ঢাকা দেন জীবন হালদার। তবে এখন পর্যন্ত থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি। এ কথা জানিয়েছে পুলিশ। পম্পা দাবি করেছেন, তিনি থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ করবেন না।সূত্র : দ্য ওয়াল

ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম