logo

রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭ | ৩ পৌষ, ১৪২৪

header-ad

কথার পিঠে কথা

রাজনীতি ডেস্ক | আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৭

নির্বাচনে জয়ের আশা কেউ ছাড়ছে না। এক দল আরেক দলকে দোষারূপ করেই যাচ্ছে। আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন, শেখ হাসিনার অধীনেই নির্বাচন হবে। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় গেলে দেশের উন্নয়ন হয়। দেশের মানুষ কিছু পায়। কিন্তু বিএনপি নেতারা বলছেন, হাসিনার অধীনে পাতানো নির্বাচন করতে দেয়া হবে না। আওয়ামী লীগ ধ্বংসের রাজনীতি করে। দু’দলের দু'রকম কথায় দোটানায় জনগণ। নির্বাচনে জানা যাবে কে ঠিক আর কে বেঠিক।

বুধবার সিরাজগঞ্জে মতবিনিময় সভায় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, বাংলাদেশে যে উন্নয়ন হয়েছে তার সবই আওয়ামী লীগ সরকারের আমলের। আর বিএনপি সরকারের আমলে দেশে শুধু লুটপাট হয়েছে।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হচ্ছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে দেশের মানুষ কিছু পায়। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে দেশের মানুষের উন্নতি হয়। নৌকায় ভোট দিলে এ দেশের মানুষ কিছু পায়। নৌকায় ভোট দিয়ে এ দেশের মানুষ স্বাধীনতা পেয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকার মানেই উন্নয়ন।

এদিকে বুধবার রাজধানীর তোপখানায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফাউন্ডেশনের আলোচনা সভায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুক বলেছেন, ২০১৪ সালের মতো হাসিনার অধীনে পাতানো নির্বাচন বাংলার মাটিতে করতে দেয়া হবে না। খালেদা জিয়া নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত। ২০১৮ সালে নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবে। ইনশাল্লাহ আমরা জয়ী হব।

তিনি বলেন, বিএনপি ধ্বংস হওয়ার জন্য জন্ম হয়নি। কোনো ষড়যন্ত্র বিএনপিকে ধ্বংস করতে পারবে না। আওয়ামী লীগ বিএনপিকে ধ্বংসের পাঁয়তারা করছে। ২০১৭ সালে বাংলাদেশে ২২ জন সাংবাদিক খুন হয়েছে, শতাধিক সাংবাদিক বিভিন্ন সময়ে নির্যাতিত হয়েছেন। উৎপলের মতো অনেক সাংবাদিক নিখোঁজ। সরকার তাদের কোনো খোঁজ দিতে পারেনি।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম