logo

মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

‘রিমান্ডের নামে মেরে ফেলার সিরিয়াল শুরু’

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: ১২ মার্চ ২০১৮

গণতন্ত্রের জন্য তারুন্যের দ্রোহকে মাটিচাপা দিতেই ক্রসফায়ারের পাশাপাশি এখন রিমান্ডের নামে মেরে ফেলার সিরিয়াল শুরু হলো বলে জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ।
সোমবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।
ঢাকা মহানগর উত্তর জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ও তেজগাঁও থানা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন মিলনকে গ্রেফতার করে নির্যাতনের মাধ্যমে মূমুর্ষ অবস্থায় বিনা চিকিৎসায় তার মর্মান্তিক ও হৃদয়বিদারক মৃত্যু হয়েছে বলেও দাবি করেন বিএনপির এই নেতা।
রিজভী বলেন, রিমান্ডে পুলিশী নির্যাতনেই মিলনকে মৃত্যুর দরজায় পৌঁছে দেয়া হয়েছে। বিএনপিসহ বিরোধী দলের নেতৃস্থানীয় নেতাদের টার্গেট করে এভাবে হত্যা, নির্যাতন ও নিপীড়ণে মেতে উঠেছে সরকার। সরকারের টার্গেট একটাই-তাহলো তীব্র পাশবিক নিপীড়ণের মাধ্যমে প্রতিবাদী তরুণসমাজকে ক্ষতবিক্ষত করে ক্ষমতায় টিকে থাকা, আর এজন্যই সরকার আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে মৃত্যু পরোয়ানার হুকুম দিয়ে মাঠে নামিয়ে দিয়েছে। বেছে বেছে বিএনপি এবং অঙ্গ সংগঠনের তরুণ নেতাদের গ্রেফতার করে রিমান্ডের নামে নির্যাতন চালানো হচ্ছে।
স্বেচ্ছাসেবক দল সভাপতি শফিউল বারী বাবু, ছাত্রদল সভাপতি রাজিব আহসান, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রদল সভাপতি মিজানুর রহমান রাজসহ তরুণ নেতাদের রিমান্ডের পর রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন চালানো হচ্ছে। এখন তাদের শারীরিক অবস্থা নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন ও দু:শ্চিন্তাগ্রস্ত বলেও জানান তিনি।
তিনি বলেন, বর্তমান ক্ষমতালোভী সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকা নিশ্চিত করতে বিএনপিসহ বিরোধী দলের নেতাকর্মীদেরকে নির্যাতন চালিয়ে নানাভাবে হত্যা করার পাশাপাশি রিমান্ডে নির্যাতন করে হত্যার আজ আরেকটি নতুন খাতা খুললো। কিন্তু এভাবে নির্যাতনের সকল সীমা অতিক্রম করে সরকার নিজেদের রক্ষা করতে পারবে না। বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের হত্যা, গুম, অপহরণসহ বর্তমান ভোটারবিহীন সরকারের সকল অপকর্ম ও নির্যাতন-নিপীড়ণের হিসেব আমরাও রাখছি। আওয়ামী লীগ শিক্ষা না নিলেও যুগে যুগে দেশ-বিদেশের সকল স্বৈরাচার ও একনায়ক’রা জনগণের মিলিত স্রোতের কাছে মাথানত করেছে, ধুলোয় মিশিয়ে গেছে তাদের চিরকাল ক্ষমতায় থাকার স্বপ্ন। আওয়ামী সরকারপ্রধান গণতন্ত্র ও সংবিধানকে কেড়ে নিয়ে নিজের দখলে রেখেছেন, এখন বিএনপি এবং অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের জীবন ও নিরাপত্তা কেড়ে নিচ্ছেন তাঁর লোকদের দিয়ে তৈরী করা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর দ্বারা। বাংলাদেশে এখন গণতন্ত্রে স্বীকৃত মানুষের অধিকারের মিছিল নেই, আছে শুধু অবিরাম শোক মিছিল।
বিএনপির এই নেতা বলেন, বিরোধী দলের সকল গণতান্ত্রিক অধিকার বলপ্রয়োগে বাধা দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আওয়ামী ক্ষমতার বলয়ে এখন এক উজ্জল তারকা। ছাত্রনেতা জাকির হোসেন মিলন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এলাকার অধিবাসী। এসময় তিনি প্রশ্ন করে বলেন, তারুণ্যদীপ্ত জাকির হোসেন মিলনকে সাংগঠনিক যোগ্যতার কারনেই কী তাকে জীবন দিতে হলো? নাকি পথের কাঁটা দুর করা হলো? এই প্রশ্ন এখন সকলের মুখে মুখে।
বেসরকারী বিমান সংস্থা ইউএস বাংলার একটি উড়োজাহাজ নেপালের কাঠমুন্ডু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্রিভুবনের রানওয়েতে বিধ্বস্ত ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন।
ফেমাসনিউজ২৪/এমআরইউ/ এসআর