logo

শনিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৮ | ৮ বৈশাখ, ১৪২৫

header-ad

'নির্বাচনের প্রস্তুতি ও আন্দোলন চলবে একসঙ্গে'

ফেমাসনিউজ ডেস্ক | আপডেট: ১৬ এপ্রিল ২০১৮

আজ সোমবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির স্বাধীনতা হলে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বলেছেন, এ বছরের শেষে দেশে একটি নির্বাচন হবে। সেই নির্বাচনে আমরা অংশগ্রহণ করব। তার আগে আন্দোলনের মাধ্যমে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও কারাবন্দি হাজার হাজার নেতাকর্মীকে মুক্ত করতে হবে।

তিনি বলেন, তবে আমরা নির্বাচনকে বাদ দিয়ে শুধু আন্দোলনে যেতে চাই না। নির্বাচন প্রস্তুতি ও আন্দোলন
চলবে একসঙ্গেই।

বাংলাদেশ ইয়ুথ ফোরাম আয়োজিত বিএনপি নেতা এম ইলিয়াস আলী নিখোঁজের ৬ বছর এবং তার সন্ধানের দাবিতে আয়োজিত যুব সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, সংবিধান সংশোধনী করার ফলে নির্বাচন অর্থবহ হবে না। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারিও হয়নি। তাই আমাদের নিরপেক্ষ নির্বাচন সরকারের দাবি আদায় করে নিতে হবে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে বা দেশের সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে দেশে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন করতে হবে। এটাই আমরা চাই।

বিএনপির এই নেতা বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমরা সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি জানাচ্ছি। একইসঙ্গে আসন্ন গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনেও আমরা সেনাবাহিনী মোতায়েন চাই। এটা আজ শুধু বিএনপি নয়, জাতীয় দাবি।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের আচরণ ও নির্যাতনের কারণে আমাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। আমরা আর পেছনে যেতে পারব না। আমরা পেছনে গেলে আওয়ামী লীগ সামনের দিকে আসবে। আর আমরা সামনের দিকে এলে সাংঘর্ষিক পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে। আমরা সেই সাংঘর্ষিক পরিস্থিতিকে এড়িয়ে যেতে চাই। আমরা বারবার আন্দোলন ও ভোটের কথা বলি। কিন্তু আমাদের আন্দোলন ভোট থেকে বিচ্ছিন্ন নয়।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম