logo

মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ | ১ কার্তিক, ১৪২৫

header-ad

খালেদাকে নিয়ে শঙ্কিত বিএনপি!

মো. রিয়াল উদ্দিন | আপডেট: ২২ এপ্রিল ২০১৮

দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিয়ে শঙ্কিত বিএনপি। কারাগারে অনাকাঙ্ক্ষিত কোনো ঘটনা ঘটলে এর জন্য দায়ী থাকবে সরকার বলেও হুশিয়ারি দিয়েছেন দলটির সিনিয়র নেতারা।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, খালেদা জিয়া দীর্ঘদিন ধরে হাঁটু ও পায়ের সমস্যায় ভুগছেন। কারাগারে যাবার পর থেকে তার শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হয়েছে। তার হাত-পা ও কোমরের ব্যথা আরও বেড়েছে। গত ৩০ বছর ধরে তিনি গেঁটে বাতে আক্রান্ত। তাছাড়া ২০ বছর ধরে ডায়াবেটিস, ১০ বছর উচ্চ রক্তচাপ ও আয়রন স্বল্পতায় ভুগছেন বিএনপি প্রধান।

এদিকে, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য কিছু বিষয়ের পরীক্ষা জরুরি বলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৪ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড একটি সুপারিশ করে। ওই সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে গত ৭ এপ্রিল তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) নেয়ার সিন্ধান্ত নেয়া হয়। সেখানে বেগম জিয়ার রক্ত পরীক্ষা ও এক্স-রে করা হয়।

পরীক্ষার রিপোর্ট গত ৮ এপ্রিল কারা অধিদপ্তরের কাছে পাঠায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) কর্তৃপক্ষ। রিপোর্টে সম্পর্কে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষায় নিয়োজিত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চার সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের প্রধান মো. শামছুজ্জামান জানান, বেগম জিয়ার ঘাড়ে ও কোমরের হাড়ে কিছুটা সমস্যা আছে। তবে রক্তের রিপোর্টগুলো ভালো, স্বাভাবিক আছে।

তবে বিএনপি নেতাদের দাবি, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়েছে। কারাগারে খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ। জরুরী ভিত্তিতে তাঁর এমআরআইসহ উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন। তবে কারা কর্তৃপক্ষ বিষয়টিকে উপেক্ষা করছে। ক্ষমতাসীনদের দাপটে কারা কর্তৃপক্ষ সরকারের মুঠোবন্দী বলেও মন্তব্য করেন বিএনপির সিনিয়র নেতারা।

নেতারা মনে করছেন, সরকার খালেদা জিয়াকে এক অবনতিশীল স্বাস্থ্যঝুঁকির মধ্যে ফেলে রাখার জন্যই কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে।

বিএনপি চেয়ারপারসনের চিকিৎসা নিয়ে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগী অভিযোগ করে বলেন, কারাগারে খালেদা জিয়াকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না। মেডিকেল বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী তাকে অর্থোপেডিক বেড দেয়া হয়নি। তার শারীরিব অবস্থা ক্রমেই অবনতির দিকে যাচ্ছে বলে আমরা যে খবর পাচ্ছি তাতে জাতি উৎকণ্ঠিত।

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান ফেমাসনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, খালেদা জিয়াকে নির্জন, পরিত্যক্ত ও স্যাঁতসেঁতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে রাখা হয়েছে। এই কারাগারটি তো পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। তবে কেন তাকে এখানে রাখা হয়েছে।

খালেদার চিকিৎসায় কোনো গুরুত্বও দিচ্ছে না সরকার এমনটা জানিয়ে তিনি বলেন, সময় মত সঠিক চিকিৎসা না পাওয়ায় অনাকাঙ্খিত কিছু ঘটলে এর জন্য দায়ি থাকবে সরকার।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল করিব রিজভী আহমেদ বলেছেন, পরিবারের সদস্যরা কিছুদিন পরপর খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেন। তাদের মাধ্যমে আমরা তার অসুস্থতার কথা জানতে পেরেছি। খালেদা জিয়া আগের চেয়ে অনেক অসুস্থ। ইউনাইটেড হাসপাতালে ব্যক্তিগত চিকিৎসকের অধীনে তিনি চিকিৎসা নিতে চান। কিন্তু সরকার প্রহসন করতে তাকে ব্যক্তিগত চিকিৎসক দিয়ে চিকিৎসা দিচ্ছেন না।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজাপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে রয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। এর পর থেকেই পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দীন রোডের পুরাতন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের রাখা হয়েছে তাকে।

ফেমাসনিউজ২৪/এমআরইউ/কেআর