logo

সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৮ আশ্বিন, ১৪২৫

header-ad

খালেদার মেডিকেল বোর্ড নিয়ে বিএনপির আপত্তি

ফেমাসনিউজ ডেস্ক | আপডেট: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় কারাবন্দি অসুস্থ বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় সরকার গঠিত মেডিকেল বোর্ডে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়েছে বিএনপি। শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, কারা কর্তৃপক্ষের মৌখিক বার্তা অনুযায়ী মেডিকেল বোর্ডে অন্তর্ভুক্তির জন্য দেশনেত্রীর ব্যক্তিগত ৫ জন চিকিৎসকের নাম দলের পক্ষ থেকে প্রেরণ করা হয়েছিল। কিন্তু খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মেডিকেল বোর্ডে রাখা হয়নি, যা নিয়ে শুধু বিএনপি উদ্বিগ্নই নয়, তাকে গুরুতর শারীরিক ক্ষতির দিকে ঠেলে দেয়ার জন্য এটি সরকারের অশুভ পরিকল্পনারই অংশ।

রিজভী বলেন, যেসব চিকিৎসকের নাম বিএনপি সুপারিশ করেছিল তারা চিকিৎসাশাস্ত্রের স্ব স্ব ক্ষেত্রে প্রথিতযশা। একইসঙ্গে তারা চিকিৎসাঙ্গনের সিনিয়র অভিজ্ঞ চিকিৎসক। দেশজুড়ে তাদের খ্যাতিও রয়েছে। যারা খালেদা জিয়াকে চিকিৎসাসেবা দিয়ে আসছেন। দীর্ঘদিন থেকে চিকিৎসা দেয়ায় খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতা সম্পর্কে তারা অবগত আছেন। সরকার গঠিত মেডিকেল বোর্ডে শুধু ক্ষমতাসীন দলের চিকিৎসকদের অন্তর্ভুক্তি করা হয়েছে।

তিনি বলেন, বোর্ডে অন্যতম সদস্য ডা. আবু জাফর চৌধুরী নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও নারায়ণগঞ্জ- ৪ আসনের এমপি প্রার্থী। তিনি দলীয় প্রার্থী হিসেবে সংশ্লিষ্ট এলাকায় ব্যাপক নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। অপর সদস্য ডা. হারিসুল হক আওয়ামী লীগের সমর্থিত চিকিৎসক সংগঠন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের বিএসএমএমইউ-এর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক।

রিজভী বলেন, আরেক চিকিৎসক অধ্যাপক তারেক রেজা আলী আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যবিষয়ক উপকমিটির সদস্য। সুতরাং সরকার গঠিত বোর্ডে বাছাইয়ের ক্ষেত্রে পেশাগত দক্ষতার চেয়ে সরকারদলীয় আনুগত্যই অধিক গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি- আওয়ামী লীগের প্রতি অনুগত্য চিকিৎসকদের অন্তর্ভুক্তকৃত মেডিকেল বোর্ডের মাধ্যমে যথাযথ চিকিৎসা ও তার শারীরিক পর্যবেক্ষণ সঠিকভাবে প্রতিফলিত হবে না। সরকার কর্তৃক গঠিত মেডিকেল বোর্ড সরকারের নির্দেশ মতোই কাজ করবে।

তিনি বলেন, এর আগেও খালেদা জিয়াকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বিএসএমএমইউতে নেয়া হয়েছিল। তখন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের ডাকা হলেও স্বাস্থ্য পরীক্ষার সময় তাদের রাখা হয়নি। খালেদা জিয়ার সঙ্গেও তাদের দেখা করতে দেয়া হয়নি।

রিজভী বলেন, গুরুতর অসুস্থ বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা দেয়ার জন্য বিএনপির উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন। তখন দেশনেত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের অন্তর্ভুক্ত করে মেডিকেল বোর্ডের মাধ্যমে তার সুচিকিৎসা এবং বিশেষায়িত ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছিলেন। তখন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বিএনপির প্রতিনিধি দলকে আশ্বাস দিয়েছিলেন।

তিনি বলেন, কর্তৃপক্ষ বিষয়টি আমলে না নেয়ায় এটাই প্রমাণ হয় যে, সরকার বেগম জিয়াকে সুচিকিৎসা না দিয়ে তিলে তিলে নিঃশেষ করতে চায়। এটি সরকারের অশুভ পরিকল্পনারই ইঙ্গিত। আমি আবারও বলতে চাই- দেশনেত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের মেডিকেল বোর্ডে অন্তর্ভুক্ত করা হোক। যদি খালেদা খালেদা জিয়ার কোনো ক্ষতি হয়, এর দায় সরকারের ওপরই বর্তাবে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ফরহাদ হালিম ডোনার, নির্বাহী কমিটির সদস্য অপর্না রায় প্রমুখ।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম