logo

শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮ | ৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫

header-ad

বিকল্পধারা থেকে বাদ পড়ছেন বি. চৌধুরী!

রাজনীতি ডেস্ক | আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০১৮

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে বাদ পড়ার পর বেকায়দায় পড়েছেন বিকল্পধারার শীর্ষস্থানীয় নেতারা। বিকল্পধারার একটি অংশ দলটির প্রেসিডেন্ট বদরুদ্দোজা চৌধুরী, মহাসচিব মেজর (অব.) আব্দুল মান্নান এবং যুগ্ম মহাসচিব মাহি বি. চৌধুরীকে বহিষ্কার করে পাল্টা-বিকল্পধারা গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ৭১ সদস্যের একটি নতুন কমিটি ঘোষণারও প্রস্তুতি নিয়েছে বিকল্পধারার বিদ্রোহী গ্রুপ। এ উদ্দেশ্যে ১৯ অক্টোবর শুক্রবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন আহবান করা হয়েছে। এদিন নতুন নির্বাহী কমিটি ঘোষণা করা হতে পারে। নতুন বিকল্পধারার ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটিতে যার আসছেন তাদের সিংহভাগই আগের কমিটির সদস্য বলে জানা গেছে।

এদিকে বাংলাদেশ ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও এনডিপির চেয়ারম্যান খন্দকার গোলাম মোর্তুজার সঙ্গে বারিধারার বাসায় রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন বি. চৌধুরী। ১৮ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে বৈঠকটি শুরু হয়। বৈঠকে ন্যাপ মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, এনডিপির মঞ্জুর হোসেন ঈসাসহ দলের অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। নিজ দলের পুরনো কর্মীদের ধরে রাখার উদ্যোগ না নিয়ে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট ছেড়ে আসা ন্যাপ ও এনডিপিকে নিয়ে নতুন জোট গঠনে বৈঠক করছেন বি. চৌধুরী।

বিদ্রোহী গ্রুপের অ্যাডভোকেট শাহ আহমেদ বাদল গণমাধ্যমকে বলেন, মাহি বি. চৌধুরী আমাদের কারো সঙ্গে কোনো কথা না বলেই এককভাবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ না দেয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তবে বিকল্পধারার চেয়ারম্যান ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী এ ব্যাপারে ইতিবাচক ছিলেন। বাবার নাম ব্যবহার করে মাহী বি. চৌধুরীর সিদ্ধান্তে দলের অধিকাংশ নেতা ক্ষুব্ধ হয়েছেন। আমরা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ জন্য শুক্রবার প্রেস কনফারেন্স ডেকেছি, সেখানে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হবে।

তিনি বলেন, নতুন উদ্যমে শুরু হওয়া বিকল্পধারা জাতীয় নির্বাচনের আগেই কাউন্সিল করে কমিটি দেবে। তবে যদি কোনো কারণে তা সম্ভব না হয় তবে নির্বাচনের পর কাউন্সিল হবে। বিকল্পধারার কেন্দ্রীয় কমিটি ৭১ সদস্যের হলেও এখন রয়েছে ২৫ থেকে ২৬ জন। এর মধ্যে কৃষিবিষয়ক সম্পাদক জানে আলম, সমবায়বিষয়ক সম্পাদক আক্তারুজ্জামান বাবলু, যোগাযোগবিষয়ক সম্পাদক খন্দকার জোবায়ের, প্রচার সম্পাদক প্রকৌশলী জুন্নু, কৃষক ধারার আহবায়ক চাষী এনামুল, মহিলাবিষয়ক সম্পাদক শিপরা রহিম, সদস্য নুর মুহাম্মদ, মিজানুর রহমান চৌধুরী, আবদুল মতিনসহ ১৭ জন আমাদের সঙ্গে আছেন।

প্রসঙ্গত, প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিএনপির সঙ্গে জড়িত বি. চৌধুরী ২০০৪ সালে রাষ্ট্রপতির পদ থেকে সরে দাঁড়ান। এরপর দলত্যাগ করে বিএনপির আরেক নেতা মেজর (অব.) আব্দুল মান্নানকে নিয়ে বিকল্পধারা বাংলাদেশ গড়ে তুলেন। প্রতীক বেছে নেন কুলা। প্রতিষ্ঠার ১৪ বছরে দলটিতে কোনো কাউন্সিল না হলেও দ্বিখণ্ডিত হতে যাচ্ছে।
ফেমাসনিউজ২৪/এফএম/এমএম