logo

শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯ | ৭ চৈত্র, ১৪২৫

header-ad

‘সময় মাত্র ১০ থেকে ২০ দিন’

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: ১০ ডিসেম্বর ২০১৮

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, দেশে আইনের শাসন ও সুশাসন নিশ্চিত হওয়া জরুরি। দেশের মালিক জনগণ, আর জনগণের মালিকানা তাদের ফিরিয়ে দিতে হবে। দেশে স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি নেই।

আজ সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে রাজনীতি ও মানবাধিকার শীর্ষক আলোচনা সভায় ড. কামাল এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিনা বিচারে হত্যাকাণ্ড মহামারি আকার ধারণ করায় মানুষের মনে উদ্বেগ উৎকণ্ঠা বাড়ছে। দেশে গণতন্ত্র না থাকার কারণেই এসব হত্যাকাণ্ড বাড়ছে। কেন দেশে মানবাধিকার লংঘন কিংবা গুম খুন আরও বাড়ছে, তার তদন্ত এবং এজন্য সরকারেরও জবাবদিহি করা উচিত।

ড. কামাল বলেন, এ সরকারের সময় আর মাত্র ১০-২০ দিন। তারপর মন্ত্রী-এমপিরা তো সাধারণ নাগরিক হয়ে যাবে। ভয়ভীতি উপেক্ষা করে জনগণকে ভোট কেন্দ্রে যেতে হবে এবং ভোট দিতে হবে। ভোট না দিতে না পারলে দেশের স্বাধীনতা হারিয়ে যাবে। আর স্বাধীনতা হারিয়ে গেলে তো আমরা চুপ করে বসে থাকব না।

তিনি বলেন, ২০১৪ সালে তথাকথিত নির্বাচনে এ সরকার ক্ষমতায় এসেছে। তখন সরকারপ্রধান বলেছিল খুব শিগগির সবার সঙ্গে আলোচনার করে একটি গ্রহণযোগ্য নিবাচন করা হবে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে- তাহলে খুব শিগগির কি ৫ বছর কাটানো, তবে তো বাংলা ডিকশনারি পরিবর্তন করতে হবে।

গতকাল এনবিআরের চেয়ারম্যান বলেছেন, ড. কামাল আয়কর ফাঁকি দিচ্ছেন কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, আমি আইনজীবীদের মধ্যে সেরা ৫ জনের একজন। সুতরাং তারা আমার সম্পর্কে খতিয়ে দেখলে আমি স্বাগত জানাব।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক মন্ত্রী শেখ শহিদুল ইসলাম, সাবেক সচিব মোফাজ্জল করিম, মোঃ নূরুল হুদা মিলু, আবদুল্লাহ আল মামুন ও তালুকদার মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ।

ফেমাসনিউজ২৪.কম/আরআই/আরবি