logo

মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৮ | ৮ কার্তিক, ১৪২৫

header-ad

‘লিবিয়ায় বাংলাদেশি জনশক্তি যেতে বাধা নেই’

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: ০৪ ডিসেম্বর ২০১৭

ঢাকায় নিযুক্ত লিবিয়ার দূতাবাসের চার্জ দ্য আফেয়ার্স মাহমুদ এম এল সাল্লাবী বলেছেন, লিবিয়ায় বাংলাদেশি শ্রমিকদের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। দেশটির সরকারি অফিস, বিভিন্ন কোম্পানি, হাসপাতালে বাংলাদেশি জনশক্তির চাহিদা রয়েছে। লিবিয়া সরকার বাংলাদেশিদের সেদেশে স্বাগত জানাচ্ছে। লিবিয়া সরকারের পক্ষ থেকে বাংলাদেশিদের সেদেশে যেতে কোনো বাধা নেই। বাংলাদেশ সরকার চাইলের সেখানে জনশক্তি রপ্তানি করতে পারে।

রোববার দুপুরে রাজধানীর বাড়িধারার লিবিয়া দূতাবাসে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান। সিএনএন-এর এক রিপোর্টে জানানো হয়, আফ্রিকান অভিবাসীদের দাস হিসেবে নিলামে বিক্রি করা হচ্ছে লিবিয়ায়। এ বিষয় লিবিয়া সরকারের অবস্থান তুলে ধরার জন্য সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়।

অভ্যন্তরীণ সংঘাত ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির কারণে লিবিয়ায় শ্রমিক পাঠানো বন্ধ রেখেছে বাংলাদেশ সরকার।

মাহমুদ এম এল সাল্লাবী সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, বাংলাদেশিরা লিবিয়ায় ভালো আছেন। আমার জানা মতে কেউ কোনো সমস্যায় নেই।

লিবিয়ায় আফ্রিকার কৃষ্ণাঙ্গ অভিবাসীদের দাস হিসেবে নিলামে বিক্রির যে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে সিএনএন তার নিন্দা জানিয়ে মাহমুদ এম এল সাল্লাবী বলেন, সিএনএনসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ ব্যাপারে যে রিপোর্ট এসেছে তার নিন্দা জানাই। এমন কোনো কাজ নেই যা লিবিয়ায় হয় না। তবে এ ব্যাপারে আমরা তদন্ত করছি। পরে লিবিয়ার আদালতের মাধ্যমে তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হবে। এ ব্যাপারে কেউ তদন্ত করতে চাইলে লিবিয়া সরকার তাকে সহায়তা করবে।

জানা যায়, ২০১১ সালে মোহাম্মদ গাদ্দাফি ক্ষমতাচ্যুত ও নিহত হওয়ার পর লিবিয়া গোলযোগ ও বিশৃঙ্খলার মধ্যে নিপতিত হওয়ার পাশাপাশি ইউরোপগামী সাব সাহারান আফ্রিকানদের এক বিশাল ট্রানজিট কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। ২০১৫ সাল থেকে ১৫ লাখেরও বেশি উদ্বাস্তু লিবিয়া হয়ে ইউরোপে প্রবেশ করেছে।

মাহমুদ এম এল সাল্লাবী বলেন, আমারা দাস প্রথা ও মানব পাচারের নিন্দা জানাই। লিবিয়া সরকার এ ব্যপারে কারো বিরুদ্ধে অবিযোগ পেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিবে।

ফেমাসনিউজ২৪/এমআরইউ/আরইউ