logo

রবিবার, ২২ জুলাই ২০১৮ | ৭ শ্রাবণ, ১৪২৫

header-ad

চলন্ত অবস্থায় খুলে গেল জবির বাসের চাকা

এফ. অার. বিপুল, জবি | আপডেট: ১৮ জুলাই ২০১৮

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) থেকে মিরপুর-১৪ রুটে চলাচলকারী উত্তরণ বাসের চাকা চলতিপথে খুলে গেছে। এ ঘটনায় তাৎক্ষাণিক হতাহত হওয়ার কোন খবর পাওয়া যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, বুধবার বিকেলে ক্যাম্পাস থেকে মিরপুর যাওয়ার পথে গুলিস্তান মাজার পার হয়ে পুলিশ হেড কোয়ার্টারের সামনে হঠাৎ বাসের সামনের বাম পাশের চাকাটি খুলে যায়। এতে শিক্ষার্থীরা আতঙ্কিত হয়ে দ্রুত বাস থেকে নেমে পড়ে। নামার সময় কয়েকজন সামান্য ব্যথা পেয়েছে। তবে কেউই মারাত্মক জখম হয়নি।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেকেই। বাসে যাতায়াতকারী শিক্ষার্থীরা বলছেন, বাসের সংশ্লিষ্টদের গাফিলতির কারণে এমন একটি ঘটনা ঘটেছে। যদি বেশি লোকজনের সামনে হত তাহলে এতে প্রাণহানির মত বড় ধরনের দূর্ঘটনা হতে পারত।

উত্তরণ বাসে চলাচলকারী নারী শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে বলেন, এটা থেকে যে কোন বড় ধরনের দুর্ঘটনা হতে পারত। অধিকাংশ মেয়েদেরকেই বাসে সিট না পাবার কারনে দাঁড়িয়ে যেতে হয় । এ ধরনের ঘটনায় অনেক বেশি হতাহতের আশঙ্কা ছিল । বাস সে সময় বেশি গতি না থাকার কারনে সবাই অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছে ।

বাসে চলাচলকারী এক শিক্ষার্থী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় ও বিআরটিসি কর্তৃপক্ষের গাফিলতির ফল আজকের এই ঘটনা। যে গাড়ি গুলোতে আমরা চলাচল করছি তার বেশির ভাগই ফিটনেস বিহীন। হয়তো এসব গাড়ির ফিটনেস চেকও করা হয় না দীর্ঘদিন। ফিটনেস চেক করলে তো এমনটা হওয়ার কথা না। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বিআরটিসিকে টাকা দিচ্ছে ঠিকই কিন্তু সেবা নিচ্ছে না।

বিশ্ববিদ্যালয় বাসে চলাচলকারী শিক্ষার্থী সূবর্ণ বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জাতির আগামী দিনের কর্ণধার। তাদেরকে দেয়া এমন সেবার মান সত্যিই হতাশা জনক।

এ বিষয়ে জানতে বাসের চালক সুলতান মিয়ার সাথে বারবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

জবির পরিবহণ পুলের পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মাসুদ বলেন, বিষয়টি আমি এই প্রথম শুনলাম। যেহেতু বাসে আমাদের কোনো স্টাফ থাকেন না এজন্য হয়তো দেরী হয়েছে সংবাদটি পেতে। এটা সত্যিই প্রত্যাশিত না। যেহেতু আমরা একটি সরকারী প্রতিষ্ঠানকে টাকা দেই, তাদেরও উচিত সঠিক সেবা দেয়া। আর বিআরটিএ তো নিজেই বাসের ফিটনেস পরীক্ষা করে। তাদের বাসেরই যদি এমন অবস্থা হয় তাহলে আমরা যাবো কার কাছে।

এ বিষয়টির জন্য আগামীকাল তাদের কাছে কৈফিয়ত চাইবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

ফেমাসনিউজ২৪.কম/জেডআর/এমআর