logo

রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৫ আশ্বিন, ১৪২৭

header-ad

বাংলা ভাষার প্রকৃত রাষ্ট্রায়ন হোক

খাদিজা আকতার | আপডেট: ১৪ মার্চ ২০১৭

শুনা যাচ্ছে, সরকারি কর্মকমিশন ৩৮তম বিসিএস পরীক্ষা ইংরেজিতে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিবেন বা নিয়েছেন অথবা নেয়ার আয়োজন করছে। ইংরেজি বাংলাদেশের রাষ্ট্রভাষা নয়, প্রথম ভাষা নয়, একমাত্র ভাষাও নয়। তাহলে ইংরেজিকে নিয়ে কিছু `উন্নত'মানের বাংলিশদের এতো প্রেম-ভালোবাসা কেন?

সংবিধানে স্পষ্ট উল্লেখ আছে, ‘প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রভাষা বাংলা’। সে অনুযায়ী রাষ্ট্রভাষা বাংলাই হওয়া উচিত রাষ্ট্রের সকল কাজকর্ম সম্পাদনের একমাত্র ভাষা।

বিসিএসে অংশগ্রহণ ও পাস করা; দেশের সর্বোচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সব বাঙ্গালির স্বপ্ন থাকে। কিন্তু এই স্বপ্ন যদি কিছু ইংরেজিপ্রেমির জন্য শেষ কালে এসে চিৎপটাং হয়ে যায়; তাহলে মনে মনে বাংলাভাষাকেই দোষ দেয়া হয়, কিংবা স্বপ্নের অন্তরায় ধরে নেয়া হয়। আর এই ইংরেজি প্রেমীরা যদি জয়ী হয়ে যায় তাহলে ভবিষ্যতে বাংলা মিডিয়াম ইংরেজি মিডিয়ামের কাছে গো হারা হেরে তলানিতে পড়ে যাবে। কিংবা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিক মেধাসম্পন্ন বাঙ্গালিরা প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলিশদের কাছে তাদের স্বপ্ন বিসর্জন দিবে।

অর্থাৎ একসময় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে অকৃতকার্য এইসব প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলিশরাই রাষ্ট্র চালাবে, ক্ষমতায় থাকবে। কারণ তারা শতভাগ ইংরেজি শিক্ষায় শিক্ষিত।তবে উচ্চজাত সম্পন্ন এইসব বাঙ্গালিদের জন্য ভবিষ্যতে এমন সুখবরও অপেক্ষা করতে পারে, বাংলাভাষাকে বিসর্জন দিয়ে পাবলিক এবং প্রাইভেট সর্বক্ষেত্রেই ইংরেজি মিডিয়াম চালু হবে।

বাংলা ভাষাকে নিয়ে চরম নৈরাজ্যের প্রকট দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পরবে রাষ্ট্রের সর্বত্র টের পাচ্ছি।বিসিএস-এর মতো একটি দীর্ঘমেয়াদি গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষায় বাংলা ভাষার ব্যবহার হোক এবং আমাদের বাংলা ভাষার প্রকৃত রাষ্ট্রায়ন হোক এটাই কাম্য।

লেখক : শিক্ষক

ফেমাসনিউজ২৪/আরইউ