logo

বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ৮ আশ্বিন, ১৪২৭

header-ad

একটি রাজনৈতিক অনুভূতি

জুয়েল বিশ্বাস | আপডেট: ০৯ এপ্রিল ২০১৭

নরেন্দ্র মোদি ও তার দল বিজেপি যেদিন বিজয়মালা পরিধান করিলেন, সেদিন আমাদের দেশের অন্যতম প্রধান একটি দলের নেতাকর্মীরা বহুত খুশি হইয়া নাচানাচি তো করিয়াই ছিলেন; সেইসঙ্গে মিষ্টি খাওয়া খাওয়িও করেছিলেন। পল্টনের যে জায়গাটিতে এই মিষ্টি খাওয়া খাওয়ি হইতেছিল, সেইখান থেকে আমার বাসগৃহ বেশি দূরে না হওয়ায়, সেই মিষ্টির ঘ্রাণ আমিও পাইয়াছিলাম। কিন্তু এই মিষ্টির স্বাদ যে বড় বিস্বাদ হইবে তা কি আর সেদিনের মিষ্টি প্রেমিকরা ভাবিয়া ছিলেন!

মোদি মহাজন মসনদে বসিয়াই প্রতিবেশী বাংলাদেশের দিকে দৃষ্টি নিক্ষেপ করিয়া হিন্দিতে একটি বাক্য বলিলেন, যার অর্থ করলে দাঁড়ায় শেখ মুজিব দেশ এনেছেন; আর তার মেয়ে দেশ গড়ছেন।’

এই কথা শুনিয়া সেদিনেই মিষ্টি খাদকরা বুজিয়া ফেলিল, অভ্যন্তরে যাহাই হোক না কেন; মনমোহন আর মোদিজিরা পররাষ্ট্র ক্ষেত্রে একই রসুনের পশ্চাৎদেশ!

অতএব মিষ্টি প্রেমিকরা তাদের আগের অবস্থানে ফিরে গেল। যার ফলশ্রুতি হিসেবেই শনিবার মিষ্টিখাদকদের মাদার বলিলেন, ‘দেশ বিক্রি করে দিয়েও শেখ হাসিনা শেষ রক্ষা পাবেন না।’

যাহাই হোক আমি আদার ব্যাপারি; জাহাজের খবর লওয়া আমার কার্য নহে!

আমাদের প্রধানমন্ত্রী ভারত ভ্রমণে গিয়ে অনেক চুক্তি-টুক্তি করিতেছেন। এই চুক্তি-টুক্তির বিন্দু-বিসর্গ আমি বুজি না। কিন্তু একটা বিষয় বুজিতেছি মোদিজি যদি সেদিন মিষ্টি খাদকদের দিকে একটু সুদৃষ্টি দিতেন তাহলে আজ হয়ত দেশ বিক্রির মহান কাজটা মিষ্টি খাদকদের মাদারের দ্বারা সম্পন্ন হইতো!

এই ঐতিহাসিক কার্য থেকে তিনি বঞ্চিত হয়েছেন, অতএব ব্যাথা তো তিনি একটু পাইতেই পারেন!

ফেসবুক পোস্ট থেকে

ফেমাসনিউজ২৪/আরইউ