logo

রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭ | ৩ পৌষ, ১৪২৪

header-ad

‘পেটে বাচ্চা থাকলে মগসেনারা আমাদেরকে ধর্ষণ করে না’

সওদুদ আহমেদ সুমন | আপডেট: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭

অসহায় এক রোহিঙ্গা নারীর কান্না
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চিকিৎসা দিচ্ছিলো কিছু ভাই, মহিলা ডাক্তারের অভাবে নারী-পুরুষ সবাইকে চিকিৎসা দিতে হচ্ছিলো ডাক্তার ভাইদের।

এক বোন খুব অসুস্থ হওয়ার পরেও লজ্জায় কিছুই বলছিলেন না, আমাদের ভাইয়েরাও ছাড়ছে না, কি হয়েছে তা তো জানতে হবে চিকিৎসা দিতে হলে।

অনেক কষ্টে যখন বোঝা গেলো ঘটনা কি, তখন মনে হইলো না শুনলেই বোধহয় ভালো হতো, একটু হলেও কষ্ট টা হজম করা যেতো।

বোনটি ছিল গর্ভবতী, ১৪ দিন বন-জংগল পাড়ি দিয়ে আসার পথে এবরেশন (গর্ভপাত) হয়ে গেছে! এখন ব্লিডিং বন্ধ হচ্ছে না। উফ....কত টা অমানবিক।

যিনি দুনিয়াতে একজন মানুষ কে আলোর মুখ দেখানোর অপেক্ষায় ছিলেন, তার থাকার কথা ছিল সম্পূর্ণ বিশ্রামে, আর সে কিনা দিনের পর দিন ইজ্জত, সম্ভ্রম, প্রাণ বাঁচানোর তাগিদে ছুটে চলেছেন।

চোখ বন্ধ করে একবার ভাবুন তো। কতটা অসহায় হলে একজন সন্তানসম্ভবা নারী এই অবস্থায় অজানার উদ্দেশ্যে বেড়িয়ে পড়ে?

এখানে হাজার হাজার বোন গর্ভবতী, প্রত্যেকের চার-পাঁচটা বাচ্চার পরও পেটে বাচ্চা!

এক ভাই একটু ধমকের স্বরে জানতে চাইলেন- আপনারা এতো বাচ্চা নেন কেনো?

উত্তরে অস্রুসিক্ত হয়ে বললেন, পেটে বাচ্চা থাকলে মগসেনারা আমাদেরকে ধর্ষণ করে না, হয় মেরে ফেলে না হয় নির্যাতন করে ছেড়ে দেয়।

এই উত্তর শোনে কি বলবেন আপনি?

ফেমাসনিউজ২৪.কম/শান্ত/মোশাই